নয়াদিল্লি : গ্রাহকদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিয়ে এসেছে আইসিআইসিআই ব্যাংক। এবার এই ব্যাংকে গ্রাহকরা ডেবিট কার্ড ছাড়াই টাকা তুলতে পারবেন বলে জানানো হয়েছে। চালু হয়েছে কার্ডলেস ক্যাশ পরিষেবা। কারণ এই করোনা সংক্রমণের আবহে বারবার এটিএময়ে গিয়ে টাকা তোলা মোটেও নিরাপদ নয় বলেই মনে করছেন আইসিআইসিআই ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

এই পরিষেবার মাধ্যমে গ্রাহকরা ‘iMobile’ অপশনে টাকা তোলার আবেদন পাঠাতে পারেন। নিজের বাড়িতে বসে মোবাইলে ‘iMobile’ অপশনে ক্লিক করলেই ডেবিট কার্ড ছাড়াই টাকা তোলা সম্ভব। ১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত তোলা যাবে এই পরিষেবার মাধ্যমে।

কার্ডলেস ক্যাশ উইদড্রল পরিষেবা তাঁদের জন্য, যেসব গ্রাহকরা কার্ড ব্যবহার করতে চাইছেন না এই সংক্রমণের ভয়ে। ট্রানজাকশান লিমিট ২০ হাজার বলে জানা গিয়েছে।

কার্ড ছাড়া কি প্রক্রিয়ায় টাকা তুলবে ? প্রথমে ডাউনলোড করতে হবে ‘iMobile’ অ্যাপটি। এরপরে Services অপশনে গিয়ে ক্লিক করুন। এরপরেই আসবে ‘Cardless Cash withdrawal’ অপশনটি।

সেটিতে ক্লিক করুন। অ্যামাউন্ট বসান, ৪ ডিজিটের টেম্পরারি পিন দিন। অ্যাকাউন্ট নাম্বার দিন। এরপর নিজের দেওয়া সব তথ্য কনফার্ম করুন। তারপর ক্লিক করুন সাবমিটে। এরপরে একটি সাকসেস লেখা মেসেজ আসবে আপনার নথিভুক্ত করা নম্বরে।

এছাড়াও আইসিআইসিআই ব্যাংকের এটিএমে গিয়ে মোবাইল নম্বর, টেম্পোরারি ৪ ডিজিটের কোড, ৬ ডিজিটের কোড, তুলতে চাওয়া অর্থের পরিমাণ দিয়ে টাকা তুলতে পারেন।

এই পুরো অর্থ কিন্তু ওয়ান টাইম ট্রানজাকশান, অর্থাৎ একবারে তুলতে হবে। যে ওটিপি আসবে, তা পরের দিন রাত পর্যন্ত বৈধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।