নয়াদিল্লি: ফল ঘোষণা শুরু হতেই দেশ জুড়ে গেরুয়া ঝড়ের ইঙ্গিত৷ কংগ্রেস বা অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলির ভরাডুবির আভাসই দিয়ে যাচ্ছে ফল৷ ফলে ফের হারের মুখ দেখার জন্য তৈরি হচ্ছেন মোদী বিরোধীরা৷ তবে রবার্ট ভডরার কথাতে এই ফলের জন্য কংগ্রেস তৈরি ছিল বলেই মনে করা হচ্ছে৷

এদিন শ্যালক ও কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে উদ্দ্যেশ্য করে রবার্ট বলেন ফল যাই হোক না কেন, আমি সব সময় তোমার পাশে রয়েছি৷ তাহলে কি এই ফলের প্রত্যাশা ছিলই? মানসিকভাবে তৈরিই ছিল কংগ্রেস? প্রশ্ন উঠছে৷ রাহুল গান্ধীকে আর ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে পি বলে সম্বোধন করে রবার্ট বলেন, তোমরা সেরা৷ আমার শুভেচ্ছা তোমাদের সঙ্গে সবসময় রয়েছে৷

এই বার্তার সঙ্গেই দুটি ছবি পোস্ট করেছেন রবার্ট৷ একটি নিজের স্ত্রীর সঙ্গে এবং একটি নিজের শ্যালকের সঙ্গে৷ কংগ্রেস সভাপতিকে শুভেচ্ছা জানানোর সঙ্গে সঙ্গে কংগ্রেসের সব নেতা, কর্মী, সমর্থকদের বার্তা দিয়েছেন তিনি৷

আরও পড়ুন : বিজেপির সদর দফতরের সামনে পুজো, যজ্ঞ

উল্লেখ্য, দাদা রাহুলের হাত ধরে সক্রিয় রাজনীতিকে প্রবেশ করেছিলেন প্রিয়াঙ্কা৷ তবে তাতে যে বিশেষ চিঁড়ে ভেজেনি, তা বলাই বাহুল্য৷ গেরুয়া নেতারা বলেছিলেন প্রিয়াঙ্কার রাজনীতিতে প্রবেশ কোনও ফারাক গড়বে না৷ তাঁর রূপের লাবণ্য থেকে স্বামী রবার্ট বঢ়রা৷ নানা ইস্যুতে ইতিমধ্যেই বিঁধেছেন তাঁকে৷

এদিকে, রবার্ট ভাদরার বিরুদ্ধে অভিযোগ, লন্ডনের ১২ ব্রায়ানস্টোন স্কোয়ারে তাঁর ১.৯ মিলিয়ন পাউন্ডের সম্পত্তি রয়েছে৷ সেই সম্পত্তি কেনার সময় ভাদরা ‘পিএমএলএ’ আইন ভঙ্গ করেছেন৷ এই নিয়ে ইডি দীর্ঘ জেরা করে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর স্বামীকে৷ টানা সাড়ে পাঁচ ঘণ্টার জেরা পর্বে ভাডরা সব অভিযোগ অস্বীকার করেন৷

জমি কেলেঙ্কারির অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে৷ চলছে ইডি’র জিজ্ঞাসাবাদ৷ এরই মাঝে প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে রবার্ট ভডরা দলের হয়ে প্রচারে নামেন৷ উত্তরপ্রদেশে কংগ্রেসের হয়ে প্রচার করতে দেখা যায় তাঁকে৷

আরও পড়ুন : মোদীকে স্বাগত জানাতে ২০,০০০ কর্মীকে আমন্ত্রণ বিজেপি হেডকোয়ার্টারে

ফল ঘোষণার সময় যত গড়িয়েছে, গেরুয়া শিবিরের মুখের হাসি চওড়া হয়েছে৷ তবে চূড়ান্ত ফল ঘোষণার আগে হার মানতে রাজি নন কংগ্রেস সভাপতি৷ বুথ ফেরত সমীক্ষার পরে তিনি বার্তা দেন দলের কর্মীরা বুথ ফেরত সমীক্ষা দেখে যেন হতাশায় ভুগতে শুরু না করে৷

ভুয়ো খবর ও গুজব থেকে দলের কর্মীদের সাবধান থাকার পরামর্শ দেন রাহুল গান্ধী৷ এদিকে প্রচারের শেষ দিন রাহুল গান্ধী বলেছিলেন যা বলার ২৩মে বলবেন৷ তাই এতদিন তিনি চুপই ছিলেন৷ কিন্তু বুথ ফেরত সমীক্ষাগুলির প্রভাব দলের কর্মীদের মধ্যে ভালোই পড়েছে৷ তা বুঝতে পেরে ট্যুইট করে দলীয় কর্মীদের উজ্জীবিত করার চেষ্টা করেন রাহুল৷