তাইপেই: ফ্রান্স, জার্মানি করোনার ধাক্কায় ফের লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রেকর্ড সংক্রমণ নজর পড়েছে মার্কিন মুলুকেও। কিন্তু এরই মধ্যে নজির গড়েছে তাইওয়ান। ২০০ দিনে সেখানে স্থানীয় স্তরে করোনা সংক্রমণ একেবারে শূন্য।

ভাইরাস মোকাবিলায় সেরার শিরোপা নিয়ে ২০০ দিন করোনা সংক্রমণ শূন্য করার রেকর্ড করেছে তাইওয়ান। সর্বশেষ এই দেশের স্থানীয় জনগণের মধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১২ এপ্রিল। শুক্রবার কাটছে ২০১ তম দিন। কিন্তু সামনে আসেনি একটিও করোনা কেস।

বিশ্বজুড়ে মানুষ জানতে চাইছে ঠিক কী করেছে ২৩ মিলিয়ন লোকসংখ্যক এই দ্বীপ। এখন অবধি এখানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫৩ জন। মৃত্যু হয়েছে মাত্র ৭ জনের।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, শুরুতেই বর্ডার লক করে দেওয়া এবং দেশের অভ্যন্তরেও ভ্রমণকে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করার ফলে ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অনেক এগিয়ে গেছে তাইওয়ান।

একদিকে তাইওয়ানে যখন পরিস্থিতি এমন, তখন আমেরিকায় কিন্তু পরিস্থিতি পুরো আলাদা। বৃহস্পতিবারে আমেরিকায় করোনা আক্রান্ত হলেন ৯০ হাজারের বেশি মানুষ। এটি এখন অবধি আমেরিকায় সর্বোচ্চ দৈনিক সংক্রমণ বলে দাবি করা হয়েছে। জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি এই পরিসংখ্যান তুলে ধরেছে।

করোনার ভয়াবহতা ফুটে উঠছে মার্কিন মুলুকের মোট আক্রান্তের পরিসংখ্যানে। ইতিমধ্যে আমেরিকায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮.৯৪ মিলিয়ন মানুষ। বিশ্বের সর্বাধিক সংক্রমণ ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই।

অন্যদিকে ভারতে কিছুটা সংক্রমণ কমলেও এখনও সংক্রমণে লাগাম টানা সম্ভব হয়নি। বৃহস্পতিবারে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮ হাজার ৬৪৮ জন। এই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫৬৩ জনের।

নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর জেরে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮০ লক্ষ ৮৮ হাজার ৮৫১তে। মোট মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ২১ হাজার ৯০ জনের। দেশে মোট সংক্রমণের হিসাবে এখনও করোনা অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ৫ লক্ষ ৯৪ হাজার ৩৮৬। যা কিনা গতকালের তুলনায় ৯৩০১ কম।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.