লাহোর: পাক মডেল কান্দিল বালোচ হত্যার ঘটনায় মূল অভিযুক্ত তথা কান্দিলের ভাই মুহম্মদ ওয়াসিমকে কোনোভাবেই সমর্থন করেন না তাঁদের মা-বাবা। বললেন, ছেলেকে কোনোদিন ক্ষমা করতে পারব না। ঠাণ্ডা মাথায় খুন করেছে সে। আমরা চাই ওর ফাঁসি হোক।

গত জুলাই মাসে নিজের বাড়িতেই খুন হন এই পাক মডেল। অনার কিলিং বলে খুনের কথা স্বীকার করে ভাই ওয়াসিম। প্রসঙ্গত, সোশ্যাল মিডিয়ায় কান্দিলের অর্ধনগ্ন ছবি ঝড় তুলেছিল। তাঁর সাহসী মানসিকতার জন্যে সেখানকার বহু মানুষ যেমন সমালোচনা করেছেন, তেমনই প্রশংসারও কুড়িয়েছেন তরুণ প্রজন্মের। ফেসবুকে সাহসী ছবি, ভিডিও ও মন্তব্য পোস্ট করার জন্যে কান্দিলকে হুমকি দিত তাঁর ভাই। এই কারণেই কান্দিলকে গুলি করে হত্যা করে সে।

কান্দিলের বাবা মুহম্মদ আজিম বলেন, আমার ছেলে যা করেছে, তাতে কোনোদিনও তাকে ক্ষমা করতে পারব না। আমাদের কাছ থেকে কান্দিলকে ছিনিয়ে নিয়েছে সে। আমি এবং আমার স্ত্রী দুজনেই চাই ছেলের ফাঁসি হোক। যদি ছেলে এবং অপর তিন অভিযুক্তের ফাঁসি হয়, তবে সবথেকে খুশি হব আমরা। তা যদি না-ও হয়, অনন্ত যেন যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয় তাদের। কান্দিলের মা-ও বলেন, ঠাণ্ডা মাথায় মেয়েকে খুন করেছে ওয়াসিম।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।