স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পৌষে জাঁকিয়ে শীত পেলেও। মাঘের শুরুতেই যেন শীতের ‘বাই বাই’ ঘণ্টা বাজছে। শীত কি এবারের মতো শেষ? এখন থেকেই কি গরমের দিন শুরু ? আর কী লাগবে না সোয়েটার, টুপি কিংবা লেপ কম্বল? হাওয়া অফিস জানাচ্ছে মাঘে আর বাঘের শীতের সম্ভাবনা কম। তবে শীতের আমেজ কিন্তু থাকবে সকাল বিকেল। বেলার দিকে পশ্চিমী ঝঞ্ঝার জন্য শীত অনুভূত হবে না। উত্তরবঙ্গ ও পশ্চিমের জেলায় রয়েছে বৃষ্টির সম্ভাবনা।

গত দিন দুয়েক ধরেই বাড়ছে কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলার তাপমাত্রা। শনিবার কলকাতার তাপমাত্রা ১৫.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশী। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে চার ডিগ্রি বেশী।

দক্ষিণবঙ্গের বেশীরভাগ অঞ্চলের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা প্রায় একইরকম রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় বাঁকুড়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৪.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বর্ধমান ও ডায়মন্ড হারবারে ১৪.৮, ১৫.৩, হলদিয়ায় ১৫.৯, মেদিনিপুরে ১৫.০, সল্টলেকে ১৬.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছুঁয়েছিল পারদ। সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও দক্ষিণবঙ্গের বেশীরভাগ অঞ্চলেই ৩০ ছুঁই ছুঁই।

আবহাওয়াবিদ সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন , ‘উত্তরবঙ্গে রবিবার পর্যন্ত বৃষ্টি চলবে। বৃষ্টি হবে উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারে।’ এই সমস্ত অঞ্চলে ভারী থেকে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস মিলেছে। এই সময়ে অর্থাৎ শনিবার ও রবিবার দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমের জেলাগুলিতে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে।

বৃহস্পতিবারের সর্বনিম্ন তাপমাত্রায় নজএ রাখলে আরও স্পষ্ট হবে কতটা চড়ছে দক্ষিণবঙ্গের তাপমাত্রা। বৃহস্পতিবার বাঁকুড়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বর্ধমান ও ডায়মন্ড হারবারে ১৪.৮, হলদিয়ায় ১৫.২, মেদিনিপুরে ১৫.০, সল্টলেকে ১৫.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছুঁয়েছিল পারদ। সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও দক্ষিণবঙ্গের বেশীরভাগ অঞ্চলেই ৩০ ছুঁই ছুঁই।

বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, দুই বর্ধমান, বীরভূম পশ্চিম মেদিনীপুরের বৃষ্টির সম্ভাবনা। তবে এই বৃষ্টির পরিমাণ খুবই হালকা হবে বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। আকাশ থাকবে মেঘলা। হালকা থেকে মাঝারি কুয়াশা থাকবে গোটা দক্ষিণবঙ্গে। রাতের দিকেও তাপমাত্রা বাড়ার সম্ভাবনা। সব মিলিয়ে নতুন বছরে ফিকে হচ্ছে শীত , তা বলা যেতেই পারে।