কলকাতা:  পুজো শেষ হতেই শহরের গায়ে হিমের পরশ। ভোর ও রাতের দিকে শরীরে কামড় দিচ্ছে শীত। শীতের এই ছোঁয়া অবশ্য গ্রামের দিকেই একটু বেশি। আবহাওয়াবিদরা অবশ্য বলছে, শীতের এই স্পর্শ খুবই সাময়িক ব্যাপার। এখনই শীতকাল এসে গেল, এমনটাই মনে করা একেবারেই ঠিক হবে না। কয়েকদিনের মধ্যে তাপমাত্রা ফের বাড়তে শুরু করবে বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদরা।
পুজোর পর হঠাত ঠাণ্ডা পড়ার পিছনে মূল ভূমিকা রয়েছে একটি নিম্নচাপের। তামিলনাডু উপকূল সংলগ্ন দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ সৃষ্টি হয়। হাওয়া অফিস জানিয়েছে, ওই নিম্নচাপটি উত্তর ভারত থেকে ঠান্ডা হাওয়া টেনে আনছে। এই কারণে তাপমাত্রা কমেছে। তবে এই পরিস্থিতির পরিবর্তন হচ্ছে। নিম্নচাপটি শক্তিশালী হয়ে তামিলনাড়ু উপকূল থেকে সরে যাচ্ছে। এটি অন্ধ্র ওড়িশা উপকূলের দিকে আগ্রসর হচ্ছে।  এই নিম্নচাপের প্রভাবে বায়ুমণ্ডলে অধিক পরিমাণে জলীয় বাষ্প ঢুকতে শুরু করবে। জলীয় বাষ্পের প্রভাবে তাপমাত্রা বাড়বে। এছাড়া কাশ্মীরের উপর দিয়ে একটি পঞ্চমী ঝঞ্জা প্রবাহিত হচ্ছে। ওই পশ্চিমী ঝঞ্ঝাটি উত্তর ভারতের দিকে চলে আসতে পারে। এর প্রভাবে চলতি সপ্তাহের শেষের দিকে রাজ্য হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা দেখছেন হাওয়াবিদরা।
তবে আবহাওয়াগত বিচারে কলকাতার সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্থায়ীভাবে যথাক্রমে ৩০ এবং ২০ ডিগ্রির নীচে চলে এলে শীত পড়েছে বলে ধরা হয়। সাধারণত নভেম্বর মসের মাঝামাঝি সময়ের আগে এই রকম পরিস্থিতি তৈরির সম্ভবনা নেই বলেই মনে করা হচ্ছে।