মুম্বই: বছরের পর বছর ধরে ব্যাট হাতে ছড়ি ঘুরিয়েছেন বিশ্বের তাবড় তাবড় বোলারদের উপর। কিন্তু কেরিয়ারের একেবারে সায়াহ্নে এসেও বিশ্বকাপ না জিততে পারার যন্ত্রণা কুঁরে-কুঁরে খেত সচিন রমেশ তেন্ডুলকরকে। ২০১১ দেশের মাটিতে অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে তাই বিশ্বকাপ জিতে যেন সব পাওয়া হয়ে গিয়েছিল ক্রিকেট ঈশ্বরের।

আর যে অধিনায়কের নেতৃত্বে ধরা দিয়েছিল অধরা মাধুরি সেই অধিনায়কের স্থান যে তেন্ডুলকরের হৃদয়ের খুব কাছে হবে, সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। তাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে মাহির সন্ন্যাস নেওয়ার ঘটনায় সমান আবেগপ্রবণ মাস্টার-ব্লাস্টার। এক টুইট বার্তায় ধোনির অবসরের পর মাস্টার-ব্লাস্টার লিখলেন, ‘মহেন্দ্র সিং ধোনি ভারতীয় ক্রিকেটে তোমার অবদান অপরিসীম। তোমার সঙ্গে একইসাথে ২০১১ বিশ্বকাপ জয় আমার জীবনের সেরা মুহূর্ত। দ্বিতীয় ইনিংসের জন্য তুমি এবং তোমার পরিবারকে শুভেচ্ছা।’

অধিনায়কত্বের ব্যাটনটা নিজের কাঁধে নিয়ে সসম্মানেই পালন করে যাচ্ছেন উত্তরসূরীর দায়িত্ব। কিন্তু পূর্বসূরীর ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার ঘটনায় আবেগ সামলাতে পারলেন না ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিও। তিনি ধোনিকে বললেন, ‘প্রত্যেক ক্রিকেটারকেই একদিন না একদিন তাঁর পথ চলা থামাতে হয়। কিন্তু তোমার কাছের কাউকে যখন এমন একটা সিদ্ধান্ত নিতে দেখো আবেগটা তখন আরও চেপে ধরে। তুমি দেশের জন্য যা করেছো সেটা দেশবাসীর হৃদয়ে গাঁথা থাকবে।’

পূজারা তাঁর আবেগঘন বার্তায় ধন্যবাদ জানালেন মহেন্দ্র সিং ধোনিকে। জাতীয় দলের টেস্ট ব্যাটসম্যান লিখলেন, ‘ভারতীয় ক্রিকেট অবদানের জন্য পাশাপাশি বছরের পর বছর ধরে মেন্টরশিপের জন্য মহেন্দ্র সিং ধোনি তোমায় ধন্যবাদ। বর্ণময় কেরিয়ারের জন্য অভিনন্দন। আগামীদিনের শুভেচ্ছা রইল।’

স্বাধীনতা দিবসের সন্ধেয় অনুরাগীদের একপ্রকার কাঁদিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণার পর সতীর্থ, অনুরাগীদের এমনই সব বার্তা প্রাক্তন বিশ্বজয়ী অধিনায়কের ইনবক্সে উপচে পড়ছে। ধোনিকে অভিনন্দন একইসঙ্গে শুভেচ্ছার জানানোর পালা চলতেই থাকবে। তবে স্বকীয় ভঙ্গিতে অবসর ঘোষণা করে ফের হয়তো আইপিএল্র বৃত্তে ঢুকে যাবেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সদ্য ‘প্রাক্তন’ তকমা পাওয়া ক্যাপ্টেন কুল।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও