লন্ডন: ২৯ জুন থেকে ১২ জুলাই শুরু হওয়ার কথা ছিল টুর্নামেন্ট। কিন্তু করোনাভাইরাস অতিমারির জেরে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তী সময় প্রথমবারের জন্য বাতিল হয়ে গিয়েছে উইম্বলডন ২০২০। তবে টুর্নামেন্ট বাতিল হলেও টুর্নামেন্টের পুরস্কারমূল্যের ব্যাপারে এক মহৎ এবং মানবিক উদ্যোগ গ্রহণ করল অল ইংল্যান্ড টেনিস ক্লাব কর্তৃপক্ষ। টেনিস অনুরাগীদের কাছে যা বেশ চমকপ্রদও বটে।

ঐতিহ্যের উইম্বলডনের জন্য বরাদ্দ ১২.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পুরস্কারমূল্য ভাগ করে দেওয়া হবে ৬২০ জন প্রতিযোগীর মধ্যে। যাঁরা সরাসরি অথবা যোগ্যতাঅর্জন পর্বের মধ্যে দিয়ে অংশ নিতেন অল ইংল্যান্ড ক্লাবে এই ঘাসের কোর্টের টুর্নামেন্টে। পুরস্কারমূল্য ক্যাটেগরি অনুযায়ী কীভাবে ভাগ করে দেওয়া হবে সেকথাও ঘোষণা করা হয়েছে কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে। জানা গিয়েছে, র‍্যাংকিং অনুসারে যে ২৫৬ জন প্লেয়ারের মূলপর্বে অংশ নেওয়ার কথা ছিল, তাঁদের প্রত্যেকে পাবেন ৩১ হাজার মার্কিন ডলার করে। পাশাপাশি যোগ্যতাঅর্জন পর্বের মধ্যে দিয়ে যে ২২৪ জন প্লেয়ারকে যেতে হত তাঁদের প্রত্যেকে পাবেন ১৫ হাজার ৬০০ মার্কিন ডলার করে আর্থিক পুরস্কার।

ডাবলসে যে ১২০ জন প্লেয়ারের অংশ নেওয়ার কথা ছিল তাঁদের ৭ হাজার ৮০০ মার্কিন ডলার করে আর্থিক পুরস্কার দেওয়া হবে। এছাড়া হুইলচেয়ার এবং কোয়াড হুইলচেয়ার প্রতিযোগীদের কাছেও পৌঁছে যাবে এই আর্থিক পুরস্কার।

এব্যাপারে এক বিবৃতি জারি করা হয় অল ইংল্যান্ড ক্লাবের পক্ষ থেকে। অল ইংল্যান্ড ক্লাবের চিফ এক্সিকিউটিভ রিচার্ড লুইস জানান, ‘টুর্নামেন্ট বাতিল ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই আমরা প্রতিযোগীদের কথা ভাবতে শুরু করি, যাঁদের কারণে আমাদের এই টুর্নামেন্ট সফল হয়ে ওঠে। আমরা খুশি পুরস্কারমূল্য প্রতিযোগীদের মধ্যে ভাগ করে দিতে পেরে। টুর্নামেন্টের বীমার কারণেই প্রতিযোগীদের হাতে এই আর্থিক পুরস্কার তুলে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে।’

উইম্বলডন বাতিল হলেও করোনা আবহেই অনুষ্ঠিত হবে বছরের বাকি দু’টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম। সমস্ত গাইডলাইন মেনে আগামী ৩১ অগস্ট-১৪ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্র ওপেন অনুষ্ঠিত হবে নিউ ইয়র্কে। এরপর ২০ সেপ্টেম্বর-৪ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে লাল সুড়কির কোর্টের লড়াই।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।