ওয়াশিংটন:  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা নিয়ে তিনি আশাবাদী৷ সফল হবে এই আলোচনা৷ এমনই মনে করছেন উত্তর কোরিয়া প্রধান কিম জং উন৷ এই নিয়ে প্রথমবারের মতো নীরবতা ভাঙলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। দেশ ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে এক বৈঠকে ওয়াশিংটন-পিয়ংইয়ং এর মধ্যকার আলোচনার সম্ভাবনার কথা উল্লেখ করেছেন তিনি।

এর আগে এই বৈঠক নিয়ে মুখ খোলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি জানান, মে মাসে কিংবা জুনের শুরুর দিকে তিনি কিমের সঙ্গে আলোচনা করতে চান। মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার জাতীয় সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ জানায়, ৯ এপ্রিল সোমবার কিম জন উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার সম্পর্কের উন্নয়ন এবং উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের আলোচনার সম্ভাবনা নিয়ে কথা বলেছেন।

এর আগে ৮ এপ্রিল রবিবার নাম প্রকাশ না করে এক মার্কিন আধিকারিক রয়টার্সকে জানান, সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে হওয়া এক গোপন বৈঠকে পিয়ংইয়ং সরাসরি এ নজিরবিহীন বৈঠকে অংশ নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে আলোচনার ব্যাপারেও সরাসরি সম্মতি জানিয়েছে তারা।

উল্লেখ্য, গত মাসে পারমাণবিক শক্তিধর উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিমের সঙ্গে বৈঠকে রাজি হন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদি অনুষ্ঠিত হয় তবে এটিই হবে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ট্রাম্পের প্রথম বৈঠক। তবে এখন পর্যন্ত বৈঠকের স্থান অথবা সময় আনুষ্ঠানিকভাবে নির্ধারণ করা হয়নি।

১০ বছরেরও বেশি সময় পরে এ মাসের শেষদিকে শীর্ষ পর্যায়ের প্রথম আলোচনায় বসছে দুই কোরিয়া। এর পরই ট্রাম্পের সঙ্গে কিমের বৈঠক হওয়ার কথা। ওই বৈঠকে কোরীয় উপদ্বীপের পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে আলোচনা করতে উত্তর কোরিয়া প্রস্তুত বলে যুক্তরাষ্ট্রকে জানিয়েছে৷