কলকাতা: এবার বন্দে ভারত মিশন নিয়েও কেন্দ্র-রাজ্য দ্বন্দ্ব। কেন্দ্রের ওই প্রকল্পের আওতায় কেন কলকাতা পর্যন্ত বিমান পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টাপাধ্যায়। এবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেই জবাব দিল বিদেশমন্ত্রক।

বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব টুইটে জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গের নাগরিকদের দেশে ফেরাতে প্রস্তুত কেন্দ্র। তবে তার আগে বিদেশ থেকে আসা প্রত্যেককে কোয়ারেন্টাইনে রাখার বন্দোবস্ত করে রাখতে হবে রাজ্যকে।

বন্দে ভারত মিশনের আওতায় লকডাউন চলাকালীনই বিদেশ থেকে ভারতীয় নাগরিকদের ফেরানোর কাজ করছে কেন্দ্রীয় সরকার। প্রথম দফায় বিশ্বের নানা প্রান্তের একাধিক দেশ থেকে ফেরানো হয়েছে ভারতীয় নাগরিকদের। তবে এখনও পর্যন্ত এই মিশনের আওতায় রাজ্যের কাউকে ফেরানো হয়নি বা এখনও কলকাতায় কোনও ফ্লাইট নামেনি।

এমনকী বন্দে ভারতের দ্বিতীয় দফাতেও কলকাতায় কোনও ফ্লাইট আসছে না। জানা গিয়েছে বিশ্বের ২১ দেশ থেকে ৩২ হাজার ভারতীয় নাগরিককে ফেরানো হবে দ্বিতীয় দফায়। দেশের ১২ রাজ্যে মোট ১৪৯ বিমান চালাবে এয়ার ইন্ডিয়া। তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের নাম না থাকায় প্রশ্ন তোলেন তৃণমূল মহাসচিব। বাংলার প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার বঞ্চনা করছে বলে টুইটে অভিযোগ করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

টুইটে পার্থ চট্টোপাধ্যায় কেন্দ্রকে দুষে আরও লেখেন, ‘জর্জিয়া থেকে গুজরাত যাওয়ার লোক রয়েছেন। কিরগিস্তান থেকে বিহারে ফিরছেন মানুষ। কিন্তু কলকাতায় কেউ ফিরতে চাইছেন না, এটা বিশ্বাস করি না। এই অবিচার বন্ধ হোক।’ কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপিকে মিথ্যাবাদী বলেও তোপ দাগেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের এই অভিযোগের জবাব দিয়েছে বিদেশমন্ত্রক। মন্ত্রকের মুখপাত্র পালটা টুইটে জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যগুলিকে নিয়ে কোনও ভেদাভেদ করে না। পশ্চিমবঙ্গ-সহ দেশের সব রাজ্যের নাগরিকদের জন্যই কেন্দ্রের বন্দে ভারত মিশন। পশ্চিমবঙ্গ সরকার নাগরিকদের ফিরিয়ে কোয়ারেন্টাইন করার কথা জানালেই রাজ্যে বিমান পাঠানো হবে বলে জানান বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও