ভোপাল: কিছুদিন আগে যখন নাইক দীপক কুমার সিং ঠাকুমার সঙ্গে কথা বলেছিলেন ভাবেননি যে এটাই তাঁর পরিবারের সঙ্গে শেষ কথা। নিজের ঠাকুমাকে তিনি জানিয়েছিলেন লকডাউনের পরেই বাড়ি ফিরবেন তিনি। কিন্তু সে আশা পূর্ন হল না কুমার সিংয়ের।

সোমবার রাতে পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চিনা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে মৃত্যু হয় একজন কর্নেলসহ ভারতীয় সেনাবাহিনীর মোট ২০ জন জওয়ানের। এরমধ্যে দীপক কুমার সিং মাত্র সাত মাস আগে বিয়ে করেছিলেন।

দিন কয়েক আগেই ফোনে কথা বলার সময়ে ৩০ বছরের দীপক তাঁর ঠাকুমাকে জানিয়েছিল লকডাউন হয়ে গেলেই ফিরবে সে। তাঁর মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরেই শোকে ভেঙে পরে তাঁর বাড়ির লোক। মাত্র ৩০ বছরের দীপক কুমার সিং-এর মৃত্যুতে শোকাহত গোটা গ্রাম।

দীপক সিং-এর ৮৫ বছরের ঠাকুমা পিটিআই-কে জানিয়েছে, “আমি কয়েকদিন আগে ওর সাথে কথা বলেছিলাম। ওই সময় সে আমাকে বলেছিল লকডাউন শেষ হওয়ার পরে ছুটি নিয়ে বাড়ি ফিরে আসবে। তবে লকডাউন শেষ হওয়ার পরে আমরা তাঁর মৃত্যুর সংবাদ পেয়েছি।”

তিনি জানিয়েছেন কয়েক বছর আগেই তাঁর মায়ের মৃত্যু হয়। তখন থেকে তিনি নিজে তাঁর সমস্ত খেয়াল রাখতেন। নাতিকে হারানোর শোকে পাথর হওয়া অবস্থাতেই তিনি বলেন, “ও খুব আদরের ছিল। সবাই তাকে খুব পছন্দ করত।”

পরিবার সূত্রে খবর, দীপক ২০১৯ ৩ ৩০ নভেম্বর বিয়ে করেছিল দীপক। তাঁর স্ত্রী রেখা সিং মধ্যপ্রদেশের সিরমৌরের নভোদয় আবাসিক স্কুলে চাকরি করেন। সদ্য বিয়ের পর স্বামীকে হারানোর কথা কিছুতেই মানতে পারছেন না তিনি।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও