স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা ও মুর্শিদাবাদ: মুর্শিদাবাদের ডোমকল কলেজে চটুল গানের অনুষ্ঠানের ঘটনায় কড়া প্রতিক্রিয়া দিলেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য৷ স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন এই ঘটনায় যদি কারোর দোষ প্রমাণিত হয়, তাহলে সঙ্গে সঙ্গে জেলার তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ইউনিট ভেঙে দেওয়া হবে৷

টিএমসিপির রাজ্য সভাপতি জানিয়েছেন এই ঘটনায় মুর্শিদাবাদের জেলা সভাপতিকে শোকজ করা হয়েছে৷ অবশ্য সেই শোকজের জবাবও দিয়েছেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের মুর্শিদাবাদ জেলা সভাপতি বিশ্ব দেব৷ তিনি জানান, “ওই বিতর্কিত অনুষ্ঠানটি তৃণমূল ছাত্র পরিষদের অনুষ্ঠান ছিল না৷ একই মঞ্চে আগের দিন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের অনুষ্ঠান হয়৷ তার পরের দিন খরচ বাঁচানোর উদ্দেশ্যে ওই একই মঞ্চে অনুষ্ঠান করে স্থানীয় বাসিন্দারা৷ সেই অনুষ্ঠানে চটুল নাচ গান চলে৷ এই ঘটনার সঙ্গে কোনও ভাবেই তৃণমূল ছাত্র পরিষদ যুক্ত নয়৷”

তবে এই সাফাই যথেষ্ট নয় বলেই মনে করছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য নেতৃত্ব৷ রাজ্য সভাপতি জানিয়েছেন তদন্ত চলছে৷ এরপর যদি কারোর দোষ প্রমাণিত হয়, তবে অভিযুক্তকে কড়া শাস্তির মুখে পড়তে হবে৷ তবে এরই পাশাপাশি তৃণাঙ্কুর জানিয়েছেন ওই মঞ্চের কোথাও টিএমসিপির ফেস্টুন বা ব্যানার লাগানো ছিল না৷

উল্লেখ্য, সোশ্যাল ও নবীনবরণ অনুষ্ঠানে উদ্দাম নাচকে ঘিরে বিতর্কের মুখে পড়ে মুর্শিদাবাদের ডোমকল কলেজ। অভিযোগ ওঠে গত সোমবার ও মঙ্গলবার দুদিন ধরে ডোমকল কলেজে চলছিল সোশ্যাল ও নবীনবরণ অনুষ্ঠান৷ আর সেখানেই চটুল গানের ওপর উদ্দাম নাচকে ঘিরে শুরু হয় বিতর্ক।

প্রশ্ন ওঠে শিক্ষাঙ্গনে কেন অশ্লীল নাচের অনুষ্ঠানে হবে? অভিযোগের তির ওঠে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের দিকে৷ তারপরেই আসরে নামেন টিএমসিপির রাজ্য সভাপতি৷ যদিও এবিষয়ে কোনও কিছু বলতে চায়নি কলেজ কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই এই কলেজের সোশ্যাল অনুষ্ঠানের সেই বিতর্কিত ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ আর তারপরেই শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক।

বিতর্ক আরও ছড়িয়েছে একটি তথ্যকে কেন্দ্র করে৷ জানা গিয়েছে, অনুষ্ঠান মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন শাসক দলের বেশ কয়েকজন নেতা৷ এবিষয়ে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জানিয়েছেন তিনি এদিন কলেজে উপস্থিত ছিলেন ন৷ তবে এই ভিডিও দেখেছেন তিনি৷ গোটা ঘটনাকেই নিন্দনীয় বলেই ব্যাখ্যা করেছেন তিনি৷ কলেজের তরফ থেকে এই ঘটনার তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি৷ যদিও এই অনুষ্ঠানের দায়িত্বে ছিলেন যাঁরা, তারা এখন গা ঢাকা দিয়েছে বলে খবর।