নয়াদিল্লি: সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বিসিসিআই সভাপতির দায়িত্ব নেওয়ায় বাকিদের মতো গৌতম গম্ভীরও খুশি হয়েছেন৷ বাকিদের মতো গম্ভীরেরও বিশ্বাস সৌরভের হাত ধরেই নতুন দিশা পেতে পারে ভারতীয় ক্রিকেট৷ তবে লোধা কমিটির প্রস্তাব মতো মাত্র ১০ মাস বিসিসিআই সভাপতির পদে থাকতে পারবেন মহারাজ৷ এই বিষয়টাই মেনে নিতে পারছেন না টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন ওপেনার তথা বর্তমান সাংসদ গম্ভীর৷ তাঁর স্পষ্ট মত যে, লোধা কমিটির প্রস্তাব মতো যদি সৌরভকে সত্যিই সরে যেতে হয়, সেটা হবে অত্যন্ত লজ্জার বিষয়৷

আরও পড়ুন: ইডেনে ‘গোলাপি টেস্টে’র উদ্বোধনে মমতা-হাসিনার সঙ্গে থাকবেন অমিত শাহ

কুলিং অফের জাঁতাকলে পড়ে সৌরভদের যাতে এক বছরেরও কম সময়ে সরে যেতে না হয়, সেকারণেই বিসিসিআই সংবিধান সংশোধন করতে পারে৷ এমন সম্ভাবনা নিয়ে জল্পনা চলছে ভারতীয় ক্রিকেটমহলে৷ বোর্ডের পরবর্তী এজিএমে সংবিধান সংশোধন নিয়ে আলোচনাও হবে৷ এ প্রসঙ্গেই গম্ভীর নিজের মতামত ব্যক্ত করেন৷

আরও পড়ুন: ইডেনে ঐতিহাসিক ডে-নাইট টেস্টের সময় পরিবর্তন

ভারতের হলে ২৪২টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা গম্ভীর বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি নিজে কুলিং-অফের সমর্থক নই৷ এটা আমি আগেও বলেছি এবং আবারও বলছি যে, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের মতো ব্যক্তিত্বের প্রয়োজন রয়েছে ভারতীয় ক্রিকেটে৷ এমন ব্যক্তিত্বের শুধু ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গিই আলাদা নয়, বরং একটা বৃহত্তর লক্ষ্য রয়েছে৷ উন্নতির লক্ষ্যে নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে৷ নিজেদের শক্তির পাশাপাশি দূর্বলতাটাও এরা বোঝে এবং সেটাকে মিটিয়ে ফেলার চেষ্টা করে৷ যদি দাদাকে ১০ মাস পরে সরে যেতে হয়, সেটা অত্যন্ত লজ্জার হবে৷’

আরও পড়ুন: দলীপ ট্রফির অভিজ্ঞতা কাজে লাগবে দিন-রাতের টেস্টে: পূজারা

যদিও গম্ভীর এও মনে করেন যে, বোর্ডের সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে লোধা কমিটির অসাধারণ কাজকে পুরোপুরি নস্যাৎ করে দেওয়াও উচিত নয়৷