স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা: কোলে সাড়ে তিন বছরের শিশুকন্যাকে নিয়ে সমুদ্রে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন এক গৃহবধূ। তবে ঘটনাটি নজরে আসতেই সমুদ্রের পাড়ে কর্তব্যরত উদ্ধারকারী দল মা ও মেয়েকে উদ্ধার করে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে দিঘায়৷

দিঘার ক্ষণিকা ঘাটের কাছে কর্তব্যরত নুলিয়া, পুলিশ, সিভিক ভলেন্টিয়ার ও সিভিল ডিফেন্স টিমের সদস্যরা দেখতে পান এক মহিলা তাঁর শিশু কন্যাকে নিয়ে সমুদ্রের অনেকটা গভীরে গিয়ে হাবুডুবু খাচ্ছে। ঘটনাটি দেখার সঙ্গে সঙ্গে ঝাঁপিয়ে পড়ে উদ্ধারকারীরা। তাঁরা দ্রুত সমুদ্রের উত্তাল ঢেউয়ের ভিতর থেকে মহিলা ও তাঁর মেয়েকে উদ্ধার করেন। তবে সেই সময় মহিলা বারবার চিৎকার করছিলেন, তাঁকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য। তিনি মরতে চান বলে বারবার জানাতে থাকেন।

উদ্ধারকারীরা তাঁকে তুলে এনে দিঘা থানায় নিয়ে যান। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, উদ্ধার হওয়া মহিলা নন্দীগ্রামের তাজপুরের বটতলা গ্রামের বাসিন্দা। তাঁর নাম তনুশ্রী গুমট্যা (৩২) মেয়ে তনয়া গুমট্যা। তাঁর স্বামী মহাব্রত গুমট্যা সেনাবাহিনীতে কর্মরত৷

দিঘা থানার ওসি বাসুকিনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, মা ও মেয়ে সমুদ্রে ঢেউয়ে তলিয়ে যাচ্ছিল৷ বিষয়টি উদ্ধারকারীদের নজরে এলে তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পর তার ঠিকানা জেনে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।

তিনি আরও জানান, ওই গৃহবধূ ঠিক কি কারণে এই ধরনের ঘটনা ঘটাতে যাচ্ছিল তা পরিষ্কার নয়। তবে মনে করা হচ্ছে পারিবারিক কোনও অশান্তির কারণে তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন৷ আমরা তদন্ত শুরু করেছি। পাশাপাশি নন্দীগ্রাম থানায় খবর দেওয়া হয়েছে।