স্টাফ রিপোর্টার, ব্যারাকপুর: ফের মনুয়া কান্ডের পুনরাবৃত্তি। এবার ঘটনাস্থল উত্তর ২৪ পরগনার নিমতা। এবারও স্ত্রী’র বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের জেরে নৃশংসভাবে খুন হতে হল স্বামীকে। মৃত স্বামীর নাম সঞ্জীবন মন্ডল (৪২)।

এই খুনের ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্ত স্ত্রী অনিতা মণ্ডলকে। নিমতার পূর্ব আলিপুর রোড এলাকায় এই চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটেছে। মৃত সঞ্জীবন পেশায় কাঠ মিস্ত্রি ছিলেন। শনিবার রাতে সঞ্জীবনকে তাঁর স্ত্রী অনিতা গলার নলি কেটে খুন করে বলে অভিযোগ।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, শনিবার রাতে অনিতার বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক নিয়ে সঞ্জীবনের সঙ্গে অনিতার তুমুল অশান্তি শুরু হয়। অনিতা আয়ার কাজ করে। জানা গিয়েছে, নিমতা এলাকাতেই জনৈক নীলাঞ্জন সরকার নামে এক যুবকের বাড়িতে আয়ার কাজ করতে গিয়ে তার সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে অনিতা। সেই সম্পর্কের কথা অনিতার স্বামী সঞ্জীবন জেনে ফেলায় সম্প্রতি স্বামী স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি শুরু হয়।

শনিবার রাতে সেই অশান্তির জেরেই অনিতা তার স্বামীকে খুন করে বলে অভিযোগ। পূর্ব আলিপুর এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা গভীর রাতে সঞ্জীবনের রক্তাক্ত দেহ তার বাড়ির পিছনের দিকে পড়ে থাকতে দেখে। তারাই খবর দেয় নিমতা থানার পুলিশকে। পুলিশ এসে ওই মৃতদেহ উদ্ধার করে এবং মৃতের স্ত্রী অনিতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে যায়। দফায় দফায় জেরায় অসংলগ্ন কথা বলতে শুরু করে অনিতা। পরে পুলিশি জেরায় অনিতা তার স্বামীকে খুনের কথা স্বীকার করে বলে পুলিশ জানিয়েছে। অনিতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে এই ঘটনার পর থেকেই পলাতক অনিতার প্রেমিক নীলাঞ্জন সরকার। পুলিশ তার খোঁজ শুরু করেছে। এই ঘটনায় পুলিশ মোট তিনটি মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করেছে। স্থানীয় বাসিন্দারা মনে করছে, অনিতা একা নয়, এই খুনের ঘটনায় আরও কেউ বা তার প্রেমিক ও জড়িত আছে। অভিযুক্ত স্ত্রী অনিতা ও তার প্রেমিক নীলাঞ্জন সরকারের কঠোর শাস্তির দাবি করেছে নিমতার পূর্ব আলিপুর এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা। গোটা ঘটনার তদন্ত করছে নিমতা থানার পুলিশ।