স্টাফ রিপোর্টার, চন্দননগর: চন্দননগর আর জগদ্ধাত্রী পুজো যেন সমার্থক৷ ফি-বারই চন্দননগরের জগদ্ধাত্রী পুজা মানেই চোখ ধাঁধানো মন্ডপ আর হরেক রকম বা আলোর কারুকাজ৷ এবারেও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি৷ বরং ফি বারের মতো এবারও চন্দননগরের জগদ্ধাত্রী পুজোকে কেন্দ্র করে রাস্তায় নেমেছে মানুষের ঢল৷ স্থানীয়রা তো বটেই চন্দননগরের জগদ্ধাত্রী পুজোকে কেন্দ্র করে পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকেও দর্শনার্থীদের ভিড় উপচে পড়ছে৷

স্থানীয় কয়েকজন মিলে তৈরি করেছেন চন্দননগরে জগদ্ধাত্রী ঠাকুর দেখার রুট ম্যাপ৷ kolkata24x7 এর তরফে সেই রুট ম্যাপই তুলে দেওয়া হল গ্রাহকদের উদ্দেশ্যে- মানকুন্ডু স্টেশন থেকে জ্যোতির মোড় পর্যন্ত এলে দেখতে পাবেন- মানকুন্ডু স্পোর্টিং ক্লাব, নতুন পাড়া, নিওগী বাগান, বালক সংঘ, সার্কাস মাঠ, চারা বাগান প্রভৃতি নামী মন্ডপের প্রতিমা৷ জ্যোতির মোড় থেকে ডান দিকে ভদ্রেশ্বরের দিকে জি.টি. রোড ধরে এগোলে দেখতে পাবেন- ছুঁতর পাড়া, অরবিন্দ সংঘ, বারাসাত ব্যানার্জি পাড়া, বারাসাত চক্রবর্তী পাড়া, বারাসাত গেটের মণ্ডপ৷

চন্দননগর থেকে আবার জ্যোতির মোড়ের দিকে ফিরে এলে রাস্তায় পাবেন- গোপাল বাগ৷ জ্যোতি সিনেমা হল থেকে তেমাথা শিব মন্দির দেখে সোজা রাস্তা ধরে গন্দলপাড়া এর দিকে এগিয়ে গেলে দেখতে পাবেন- অম্বিকা অ্যাথলেটিক্স, এ সি চ্যাটার্জি লেন, মরান রোড, মনসাতলা, সাতঘাট, কাছারিঘাট, নতুন তেলি ঘাট, চার মন্দিরতলা, বেশোহাটার মন্ডপ৷

সেখান থেকে ডানদিকে স্ট্রান্ড রোড দিয়ে সোজা এগোলে চোখে পড়বে –দৈবক পাড়া, নোনাটোলা, বড়বাজারের মন্ডপ৷ সেখান থেকে রানিঘাট হয়ে সোজা উদ্দিবাজার হয়ে লক্ষিগঞ্জ বাজার ধরে জি টি রোড৷ রাস্তায় দেখা মিলবে- আদি মা (চাউল পট্টি), মেজো মা(কাপড় পট্টি) ও সরিষা পাড়ার মন্ডপ৷ এবার সেখান থেকে জি টি রোড ধরে সোজা চুঁচুড়ার দিকে এগিয়ে গেলে দেখতে পাবেন-বোড়ো সার্বজনীন, বোড়ো কালীতলা, চাঁপাতলা, বোড়ো দিঘির ধার, বোড়ো তালদাঙ্গা, উত্তরাঞ্চল চরকতলা, বিবিরহাট, হরিদ্রাদাঙ্গা, সন্তান সংঘ, হেলাপুকুর, ধারাপাড়া, পালপাড়া৷

এবার সংশ্লিষ্ট পথ ধরে বিদ্যালঙ্কার মোড়ে পৌঁছলে দেখতে পাবেন- বিদ্যালঙ্কা, বাগবাজার, তালপুকুর৷ এবার সেখান থেকে বাগবাজার মোড়ে এসে বাম দিকে এগোলে চোখে পড়বে বাগবাজার চৌমাথা, বাগবাজার৷ এবার চন্দননগর স্টেশনের দিকে এগোন চোখে পড়বে- মধ্যাঞ্চল, ফটকগোরা, আপনজন ও খলিসানি৷ এবার লাইন টপকে চন্দননগর স্টেশনের ওপারে যান৷ দেখতে পাবেন- কলপুকুর ধার, শীতলাতলা, বউবাজার, সুভাষপল্লী, ব্রাম্ভিন পাড়ার চোখ ধাঁধানো মন্ডপ৷ এবার চন্দননগর স্টেশন থেকে জ্যোতির মোড় হয়ে বাগবাজারের দিকে যান৷ দেখতে পাবেন –লিচুতলা, কাপালি পাড়া, সাহেব বাগান, রথের সারক, পাদ্রী পাড়া, কালীতলা, ডুপ্লেক্স পট্টি, ষষ্টি তলা, হালদার পাড়া, লালবাগান পাদ্রীপাড়ার মন্ডপ৷

বে এই রুট একদিনে শেষ করা সম্ভব নয়৷ নিদেন পক্ষে দু থেকে তিন দিন সময় লাগবেই৷ অগত্যা, দেরি কেন? রুট ম্যাপ হাতে বেরিয়ে পড়ুন চন্দননগরের জগদ্ধাত্রী দর্শনে৷

Advertisements