মুম্বই: War And Peace নিয়ে বম্বে হাইকোর্টের বিচারপতির মন্তব্যে ঘিরে যে বিতর্ক দানা বেধেছে তারই জেরে তাঁকে কড়া সমালোচনা করলেন জয়রাম রমেশ৷ খবরে প্রকাশ বম্বে হাইকোর্টের বিচারপতি সরং কোতয়াল প্রশ্ন তুলেছিলেন লেখক তথা সমাজকর্মী ভার্নন গঞ্জালভেসকের কাছে – কেন বাড়িতে রাখা হয়েছে লিও টলস্টয়ের লেখা War And Peace বইটি৷ আর তা শুনে ইতিমধ্যে বিতর্ক শুরু হয়েছে ৷ যা নিয়ে ওই বিচারপতিকে কটাক্ষ করেন জয়রাম রমেশ৷

ভীমা কোরেগাঁওয়ে অশান্তির অভিযোগে পুলিশ গ্রেফতার করেছিল ভার্নন গঞ্জালভেসকে। ফলে বম্বে হাইকোর্টে জামিনের আর্জি জানিয়েছিলেন এই সমাজকর্মী লেখক। সেই মামলার শুনানিতে বিচারপতি সরং কোতয়াল জানতে চান, ভার্নন কেন তার বাড়িতে টলস্টয়ের War And Peace-এর মতো ‘আপত্তিকর’ বই রাখা ছিল। পাশাপাশি তাঁর বাড়িতে থাকা কয়েকটি সিডি রাখা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন এই বিচারপতি।

পুণে পুলিশের অভিযোগ ছিল,গঞ্জালভেসের বাড়ি থেকে বছর খানেক আগে উদ্ধার হয়েছিল ওই বই-সহ বেশ কিছু সিডি, যা অত্যন্ত উস্কানিমূলক। কবীর কলা মঞ্চ থেকে প্রকাশিত ‘রাজ্য দমন বিরোধী’ নামক একটি সিডির কথা পুণে পুলিশ উল্লেখ করেছে৷ ওই সিডির শিরোনামের মধ্যে দেশবিরোধী কার্যকলাপের মতো বিষয়বস্তুও রয়েছে। তারই বিচারপতি গঞ্জালভেসকে ওইসব বই এবং সিডি সম্পর্কে ব্যাখ্যা করতে বলেন।

এই ঘটনা জানাজানি হতে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিদ্রুপ করতে দেখা গিয়েছে ৷ এই বিতর্কে ওই বিচারপতির সমালোচনা করেছেন কংগ্রেস সাংসদের জয়রাম রমেশ৷ এই বিষয়ে কটাক্ষ করে রমেশ বলেছেন, সত্যিই আশ্চর্যের যে কারও বাড়িতে টলস্টয়ের War And Peace-বইটি রাখা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন এবং রাখার কারণ ব্যাখ্যা করতে বলছেন বম্বে হাইকোর্টের বিচারপতি। তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন, মহাত্মা গান্ধীও এই টলস্টয়ের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন। আর কটাক্ষ করে বলেছেন, নতুন ভারতে আপনাকে স্বাগত।

তবে আবার বৃহস্পতিবার বম্বে হাইকোর্টে অন্য এক অভিযুক্তের পক্ষের আইনজীবী যুগ চৌধুরী এই ব্যাপারে সাফাই দেন৷ তিনি দাবি করেন , আদালত টলস্টয়ের ‘ওয়ার অ্যান্ড পিস’ বইয়ের কথা বলেননি। যে বইটি নিয়ে কথা ঘিরে বিতর্ক সেই বইটি হল ‘ওয়ার অ্যান্ড পিস ইন জঙ্গলমহল: পিপল, স্টেট অ্যান্ড মাওইস্ট’৷ ওই বই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন বিচারপতি। যদিও তার পরও পর্যবেক্ষকদের একাশের মতে, এই বই নিয়ে প্রশ্ন তুললেও তাতে বিতর্কের অবকাশ আছে কারণ, এই বইটিও তো নিষিদ্ধ করা হয়নি।