জানেন তো কলাগাছ আসলে কিন্তু ঠিক গাছের মধ্যে পড়ে না? তবু আকার ও আয়তনে এটিকে গাছ হিসেবেই ধরা হয়। আর হিন্দু ধর্মে কলাগাছের বিশেষ মাহাত্ম্য রয়েছে। বিভিন্ন পূজা-অর্চনায় ব্যবহার করা হয় কলাগাছ।

পৌরাণিক ব্যাখ্যা অনুযায়ী, কলাগাছ আসলে দেবগুরু বৃহস্পতির সমতুল্য। আর এই বিশ্বাস এতটাই দৃঢ় যে, কারও যদি বৃহস্পতি ধারণের প্রয়োজন হয়, তাহলে পাথরের বদলে কলা গাছের শিকড়ও ধারণ করা যেতে পারে। তাতেও একই কাজ হয়। বাড়িতে কলাগাছ থাকা আসলে দেবগুরু থাকার সমান।

কলাগাছের পাতাকে খুবই পবিত্র বলে মনে করা হয়। যে কোনও বৈদিক রীতে কলা পাতার ব্যবহার দেখা যায়। এই গাছের ফল হল খুবই এনার্জি দায়ক। এতে অন্তত ১০০ ক্যালোরি এনার্জি থাকে। গরিব মানুষের পক্ষেও এই ফল সহজলভ্য।

কেউ যদি তাঁর গুরুকে কোনও টাকা দিয়ে দক্ষিণা দিতে না পারেন, তাহলে কয়েকটি কলা দিতে বলা হয়। গৃহপ্রবেশ বা বিয়ের অনুষ্ঠানে বাড়ির সমানে কলাগাছ পুঁততে দেখা যায়।

বলা হয়, কলাগাছ বিষ্ণুর অবতার। অনেকেই বৃহস্পতিবার করে কলাগাছের পুজো করে। এতে ঘরে লক্ষী আসে। পরিবারে সুখ আসে।