স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : নারদা কান্ডে আইপিএস অফিসার এস এম এইচ মির্জাকে গ্রেফতার করেছে সিবিআই। আর এই গ্রেফতারি নিয়েই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী। বাম পরিষদীয় দলের নেতা সুজন চক্রবর্তী কলকাতা ২৪×৭কে জানান, যা হবার তাই হয়েছে। এদের গ্রেফতারই হবার কথা।

এদিন তিনি বলেন প্রকাশ্যে এরা টাকা খেয়েছে সবাই দেখেছে। তৃণমূল দলের হয়ে আর মুখ্যমন্ত্রীর হয়ে যারা টাকা তোলে, তারা আইপিএস নয়, আইপিএসের কলঙ্ক। মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্রয়ে এসব চলেছে। এখন মুখ্যমন্ত্রী বলতে চাইছে, যাকে পারিস তাকে ধর কিন্তু পিসি ভাইপোকে নিয়ে টানাটানি করো না।

নারদ কান্ড প্রকাশ্যে আসার পরে কেটে গিয়েছে প্রায় সাড়ে তিন বছর। এই প্রথম কাউকে গ্রেফতার করল সিবিআই। এই নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন সুজন চক্রবর্তী। নারদা কান্ডে গ্রেফতার করতে কেন সাড়ে তিন বছর সময় লাগল?

ইতিমধ্যেই তাঁর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে৷ তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক তথ্যপ্রমাণ রয়েছে বলে জানিয়েছে সিবিআই৷ নারদ কাণ্ডে তাঁর ফুটেজ খতিয়ে দেখা হয়৷ তার কণ্ঠস্বরের নমুনাও সংগ্রহ করেন সিবিআইয়ের আধিকারিকরা৷ তারপরেই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়৷

তাকে হেফাজতে নিয়ে সিবিআই জানতে চাইবে কেন তিনি টাকা নিয়েছিলেন, কেন এই টাকার লেনদেন হয়৷ আর কারা রয়েছে এই আর্থিক লেনদেনের পিছনে৷ ধৃত এই আইপিএস অফিসারকে পেশ করা হবে ব্যাঙ্কশাল আদালতে৷