মুম্বইঃ মহারাষ্ট্র নির্বাচনের ফলাফল সরকার গঠন নিয়ে শুরু হয় বচসা। শিব সেনা কড়া কটাক্ষের মুখে বিজেপি শাসিত কেন্দ্রীয় সরকার। ইউরোপীয় সংসদের প্রতিনিধি দলের কাশ্মীর ঘুরে দেখাকে ভালো চোখে দেখছেনা শিব সেনা। তাই ক্ষোভ উগরে দিয়েছে কেন্দ্রের উপর। নরেন্দ্র মোদী সরকারকে একহাত নিয়ে শিব সেনার মুখপত্রতে তাঁরা প্রশ্ন তুলেছেন, কাশ্মীর যদি ভারতের অভ্যন্তরীন বিষয় হয় তাহলে ইউরোপীয় সংসদের ২৮ জনের প্রতিনিধি দল সেখানে কী করছে।

শিব সেনার জানতে চেয়েছে, “ইউরোপীয় সংসদের ২৮ জনের প্রতিনিধি দল কাশ্মীর পরিস্থিতির খোঁজখবর নিতে সেখানে গিয়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছিল কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীন বিষয়। কাশ্মীরে ভারতের পতাকা ওড়ানোয় আমরা নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহকে নিয়ে গর্বিত। কাশ্মীরে সবকিছু স্বাভাবিক হলে ইউরোপীয় সংসদের লোকেরা সেখানে কী করছে। কাশ্মীর কী তাহলে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়?”

শিব সেনার মুখপত্র সামনা’তে বলা হয়েছে, “রাষ্ট্রসংঘকে আপনারা ঢুকতে দিতে চান না তবে বিদেশের প্রতিনিধি দল সেখানে কী করছে। বিদেশিরা কাশ্মীরে আসছে যা স্বাধীনতা নিয়ে বিরাট প্রশ্নচিনহ তৈরি করছে, প্রশ্নের মুখে দাঁড় করাচ্ছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে উত্তর দিতে হবে যে কীভাবে বিদেশের প্রতিনিধি দল কাশ্মীরের ভেতরে গেলেন যেখানে ভারতের সংসদের সদস্যদের অনুমটি দেওয়া হয়নি। আমরা চাই প্রতিনিধি দলের সদস্যরা যেন খারাপ প্রতিক্রিয়া না হয়।”

কাশ্মীরে বিদেশিদের যাতায়াত নিয়ে শিব সেনা আরও বলে যে, ইউরোপীয় প্রতিনিধি দলের উপত্যকা ঘুরে দেখার বিষয়টি বিরোধীদের ফের সরব হতে সাহায্য করেছে। তাঁরা সুযোগ পেয়েছে কথা বলার।

অগস্টের ৫ তারিখ কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর এই প্রথম কোন উচ্চস্তরের বিদেশিরা সেখানে গেলেন। শিব সেনার মুখপত্রে বিজেপিকে বার বার আক্রমণের মুখে পরতে হচ্ছে এমনটাই জানিয়েছিল দেবেন্দ্র ফড়নবীশ। ঠিক তার দু’দিন পরে ক্ষোভ প্রকাশ করেছন এবং মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমের সামনে একথা জানিয়েছিলেন। ঠিক সেই মন্তব্যের পর ফের শিব সেনার আক্রমণের মুখে পড়ল বিজেপি।