বেঙ্গালুরু: মুম্বইয়ে হারের বদলা নিয়ে রাজকোটে সমতায় ফিরেছে টিম ইন্ডিয়া। অর্থাৎ প্রথম দু’ম্যাচের একটিতে জয়লাভ করে দু’দলের পাখির চোখ বেঙ্গালুরুতে নির্ণায়ক ম্যাচের দিকে। অল-রাউন্ড পারফরম্যান্সে গত ম্যাচে সিরিজে সমতা ফিরলেও শেষ ম্যাচে অজিদের পাশাপাশি ভারতীয় দলের প্রতিপক্ষ চোট-আঘাত।

চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে শেষ সাক্ষাতে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারলেও মুখোমুখি সাক্ষাতে পাল্লা ভারি বিরাটদের। তবে ফেভারিট হিসেবে গার্ডেন সিটিতে মাঠে নামলেও মহাত্মার শহরে ৩৬ রানে জয়ের ম্যাচে চোট পেয়ে বসেছেন ভারতীয় দলের দুই ওপেনারই। শুক্রবার ব্যাটিংয়ের সময় প্যাট কামিন্সের লাফিয়ে ওঠা বলে পাঁজরে আঘাত পেয়ে বসেছেন শিখর ধাওয়ান। চোট নিয়ে ৯৬ রানের ইনিংস খেললেও গত ম্যাচে ফিল্ডিং করতে নামতে পারেননি তিনি। অন্যদিকে ফিল্ডিংয়ের সময় বাম কাঁধে চোট শেষ ম্যাচে অনিশ্চিত করে তুলেছে রোহিতকেও। বিসিসিআই’য়ের তরফ থেকে জানানো হয়েছে দু’জনেই দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছেন। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে ম্যাচের আগে।

নিতান্তই দুই ওপেনার খেলার অবস্থায় না থাকলে ওপেনে দেখা যাবে গত ম্যাচে মারকাটারি ৮০ রানের ইনিংস খেলা কেএল রাহুলকে। সেক্ষেত্রে তাঁর সঙ্গী হতে পারেন মনীশ পান্ডে। এমনিতেই রাহুল জানিয়েছেন দলের প্রয়োজনে যে কোনও পজিশনে দায়িত্ব পালনে প্রস্তুত তিনি। আর ব্যাট হাতে মাঠে নামতে অসুবিধা না থাকলে নজির অপেক্ষা করে রয়েছে ‘হিটম্যান’ রোহিত শর্মার জন্য। তৃতীয় দ্রুততম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ান-ডে ক্রিকেটে ৯,০০০ রান পূর্ণ করার সামান্য দূরে দাঁড়িয়ে তিনি। বেঙ্গালুরুতে ৪ রান করতে পারলেই বিরাট কোহলি, ডি’ভিলিয়ার্সের পর দ্রুততম হিসেবে ৯,০০০ রানের মালিক হবেন ভারতীয় ব্যাটসম্যান।

গত ম্যাচে বল হাতে দুরন্ত পারফর্ম করা বোলিং কম্বিনেশনে ভারত পরিববর্তন না আনলেও বদল আসতে পারে অজি শিবিরে। কেন উইলিয়ামসনের পরিবর্তে সিরিজে প্রথমবার সুযোগ পেতে পারেন জোস হ্যাজেলউড। কিন্তু চিন্নাস্বামীতে ভারতের বিরুদ্ধে ২০১৭ সাক্ষাতে তাঁর ৫৮ রানে ৩ উইকেটও মাথায় রয়েছে ম্যানেজমেন্টের। তবে ব্যাটিং অর্ডারে পরিবর্তন হওয়ার বিশেষ সম্ভাবনা নেই অজি শিবিরে। বরং দুই ওপেনার সুস্থ হয়ে উঠলে মিডল অর্ডারে গত ম্যাচে ব্যর্থ হওয়া মনীশের পরিবর্তে কেদার যাদব কিংবা শিবম দুবে রয়েছে ভারতীয় শিবিরে।