রাজকোট: টি-২০ ও ওয়ান-ডে ফর্ম্যাট মিলিয়ে তাঁর শেষ ছ’টি ইনিংসের রান যথাক্রমে ১০২, ৭৭, ৪৫, ৫৪, ৪৭ এবং ৮০। শেষ তিনটি আন্তর্জাতিক ম্যাচে তিনটি ভিন্ন ব্যাটিং পজিশনে সফল তিনি। ব্যাটের পাশাপাশি উইকেটকিপিং গ্লাভস হাতে পালন করছেন দ্বৈত ভূমিকা। রাজকোটে সিরিজের দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তাঁর ৫২ বলে ৮০ রানের ইনিংসে মুগ্ধ ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ থেকে নেটিজেনরা। আর নিজের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে আত্মতুষ্ট না হয়ে কেএল রাহুল বলছেন দলের জন্য যে কোনও পজিশনে যে কোনও ভূমিকায় তিনি দায়িত্ব পালন করতে প্রস্তুত।

ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি উইকেটকিপিং গ্লাভস হাতে রাজকোটে উইকেটের পিছনে নজর টানলেন দক্ষিণী ক্রিকেটার। ব্যাট হাতে ঝোড়ো ৮০ রানের সঙ্গে দুরন্ত স্টাম্পিংয়ে ফেরালেন ক্রিজে থিতু হয়ে যাওয়া অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চকে। ম্যাচ শেষে জানালেন, ‘শেষ দু’মাসে এটা আমার জন্য একটা দারুণ চ্যালেঞ্জ। ইদানিং ভালো ফর্মে রয়েছি যা আমার আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তুলছে। প্রতিদিনই নতুন নতুন দায়িত্ব পালন করছি আর উইকেটরক্ষার নতুন দায়িত্ব আমার কাছে আশীর্বাদের মতো। আমার মনে হয় খুব কম ব্যাটসম্যান এমন সুযোগ পায়। আমি আমার ব্যাটিং উপভোগ করছি এবং আমায় যে পজিশনেই পাঠানো হোক না কেন ব্যাট হাতে আমি যে কোনও দায়িত্ব পালনে প্রস্তুত।’

একইসঙ্গে ব্যাটিং অর্ডারে নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ ফেস করতে বিশেষ করে মিডল অর্ডারে ইনিংস বিল্ড আপের জন্য তিনি একাধিক ব্যাটসম্যানের দ্বারস্থ হয়েছেন বলে জানান কর্ণাটকী ব্যাটসম্যান। অধিনায়ক বিরাটের টিপস তো নিয়েছেনই, পাশাপাশি এবি ডিভিলিয়ার্স এবং স্টিভ স্মিথের ব্যাটিং ভিডিও দেখে তিনি নিজেকে প্রস্তুত করেছেন বলে জানান রাহুল। যা ব্যাট হাতে গেম রিডিংয়ে তাঁকে অনেক সাহায্য করেছে। একইসঙ্গে প্রতিদিন নতুন পজিশনে ব্যাটিং করার বিষয়টিকে কোনভাবেই চাপ হিসেবে দেখতে নারাজ তিনি।

উল্লেখ্য, মুম্বইয়ে প্রথম ম্যাচে ১০ উইকেটে হারের পর রাজকোটে ৩৬ রানে জিতে অজিদের বিরুদ্ধে ওয়ান-ডে সিরিজে দুরন্ত কামব্যাক করেছে টিম ইন্ডিয়া। ধাওয়ানের ৯৬, অধিনায়ক কোহলির ৭৬, রাহুলের মারকাটারি ৮০ রানের সৌজন্যে দ্বিতীয় ওয়ান-ডে ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ৩৪০ রানের বিশাল স্কোর খাড়া করে টিম ইন্ডিয়া। জবাবে স্টিভ স্মিথের ৯৮ কিংবা মার্নাস ল্যাবুশেনের ৪৬ রান হার এড়াতে পারেনি অস্ট্রেলিয়ার। ভারতীয় বোলারদের সম্মিলিত প্রয়াসে পাঁচ বল বাকি থাকতেই ৩০৪ রানে গুটিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস।

ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন মহম্মদ শামি। ২টি করে উইকেট নেন নভদীপ সাইনি, রবীন্দ্র জাদেজা ও কুলদীপ যাদব। বুমরাহর ঝুলিতে ১টি উইকেট। আগামী রবিবার বেঙ্গালুরুর চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে সিরিজের নির্ণায়ক ম্যাচে মুখোমুখি দুই দল।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা