এস. এম সাজু আহমেদ, ঢাকা: বাংলাদেশে গত বুধবার (১৮ নভেম্বর) থেকে  বন্ধ রয়েছে ফেসবুক, ম্যাসেঞ্জার, ভাইবার, হোয়াটসঅ্যাপ, লাইন, ট্যাংগো ও হ্যাংআউটসহ সামাজিক যোগাযোগের কয়েকটি মাধ্যম ও আরও কিছু অ্যাপস।  গত ৬ দিন হলো এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো বন্ধ থাকলেও কবে নাগাদ এগুলো খুলে দেওয়া হবে সে বিষয়ে এখনো কোনো সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে এই জনপ্রিয় সামাজিক মাধ্যমগুলো সরকারিভাবে বন্ধ থাকলেও তথ্য-প্রযুক্তিতে দক্ষরা প্রক্সি সার্ভার দিয়ে অনায়াসেই ব্যবহার করছেন এগুলো।  আর শুধু মাত্র সাধারণ ব্যবহারকারীরা এসব অ্যাপস ব্যবহার থেকে বিরত রয়েছে এবং নানা কাজে বিভিন্ন জনের সাথে যোগাযোগ রাখতে পড়েছেন ভোগান্তিতে।

সরকারিভাবে এই মাধ্যমগুলো বন্ধ করা হলেও সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক প্রতিমন্ত্রীকেও (Zunaid Ahmed Palak) ফেসবুকে সচল থাকতে দেখা গিয়েছে। গত ১৮ তারিখে ফেসবুক বন্ধ হওয়ার পর তার ফেসবুক ওয়ালে দুটি পোস্ট শেয়ার করতে দেখা যায়। এছাড়া ফেসবুক কর্তৃক ভেরিফায়েডকৃত সরকারি দলের (Bangladesh Awami League) এই পেজটিকেও সচল দেখা গিয়েছে।

কবে নাগাদ সর্বসাধারণের জন্য এই যোগাযোগ মাধ্যমগুলো খুলে দেয়া হবে- এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানায়, দেশের সার্বিক নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়মিতভাবে পর্যবেক্ষণ ও পর্যালোচনা করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। সার্বিক বিবেচনা করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক মনে হলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়কে জানিয়ে দেওয়া হবে।

এদিকে গত শনিবার এক সেমিনারে  ডাক ও টেলি যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম জানিয়েছেন, জননিরাপত্তা ও জনস্বার্থে যতদিন প্রয়োজন ততদিন ফেসবুক বন্ধ থাকবে। তিনি জানান, জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত ফেসবুকসহ যে সব ইন্টারনেট অ্যাপস বন্ধ রয়েছে তা বন্ধ থাকবে। তবে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক বলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা পেলেই এগুলো খুলে দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানিয়েছিলেন, সময় হলেই ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাপসগুলো খুলে দেওয়া হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন, সারা পৃথিবীতেই আজকে যে ধরনের ঘটনা ঘটছে, তার ছিটেফোঁটা হয়তো বংলাদেশেও লেগেছে। সেজন্য সাময়িকভাবে আমরা এই ব্যবস্থা নিয়েছি। অবস্থার পরিবর্তন হলেই ফেসবুকসহ অন্যান্য মাধ্যমগুলো খুলে দেওয়া হবে।