মানব গুহ কলকাতা: পাহাড় কি আবার হাসবে? আবার কবে দার্জিলিং যেতে পারবেন বাঙালিরা? মঙ্গলবার বিকালের পর এই প্রশ্নগুলোর উত্তর পাওয়া গেলেও যেতে পারে৷ বিকাল ৪ টের সময় নবান্নে বসছে পাহাড় সমস্যা নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠক৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকা সর্বদলীয় বৈঠকে পাহাড়ের অন্যান্য দলের সঙ্গে থাকছে বিনয় তামাংয়ের নেতৃত্বে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চাও৷

প্রায় ৮০ দিন ধরে চলছে লাগাতার আন্দোলন৷ বন্ধ পাহাড়ের স্বাভাবিক জনজীবন৷ চলতি বছরে জুনের ৮ তারিখে রাজ্য সরকারের মন্ত্রিসভার বৈঠককে কেন্দ্র করে পাহাড়ে বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু করে মোর্চা৷ ৮ই জুন প্রায় ৩০ জন মন্ত্রীকে নিয়ে পাহাড়ের রাজভবনে প্রথমবার বৈঠকে বসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মন্ত্রিসভার বৈঠককে কেন্দ্র করে ম্যাল চত্বর সহ গোটা পাহাড়ে তুমুল বিক্ষোভ দেখায় গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার কর্মী-সদস্যরা৷ কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বিক্ষোভ রণক্ষেত্রের আকার নেয়৷

পরিস্থিতি সামাল দিতে কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটায় পুলিশ৷ মোর্চা সমর্থকদের উপর ব্যাপক লাঠিচার্জ করা হয় বলেও অভিযোগ ওঠে৷ এদিকে পুলিশকে লক্ষ্য করে মোর্চা সমর্থকেরা পাথর ছোড়ে বলেও অভিযোগ ওঠে৷ একাধিক পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয় মোর্চা সমর্থকেরা৷ বন্ধ হয়ে যায় সমস্ত দোকান৷ সংঘর্ষে পুলিশ ও মোর্চা, দুই পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়৷ সেই শুরু৷

সেই দিন থেকেই অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে দার্জিলিং৷ পরিস্থিতি সামাল দিতে নামান হয় সেনা৷ মন্ত্রিসভার বৈঠককে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই মোর্চা-পুলিশ সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পাহাড়৷ দীর্ঘ ৪৫ বছর পর পাহাড়ে রাজভবনে মন্ত্রিসভার বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সেই বৈঠককে কেন্দ্র করেই কার্শিয়াং, কালিম্পং সহ দার্জিলিংয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে মোর্চা সমর্থকেরা৷ এরপরেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রথমে কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটানো হয়৷ চলে ব্যাপক লাঠিচার্জ৷

পাহাড়ে আটকে পরেন মুখ্যমন্ত্রী সহ রাজ্যের ৩০ জন মন্ত্রী ও আমলারা৷ একই সঙ্গে পাহাড়ে আটকে পরেন প্রায় ১০ হাজার পর্যটক৷ সেই দিন থেকেই বন্ধ হয়ে যায় এলাকার সমস্ত দোকান৷ পরিস্থিতি এতটাই ভয়াবহ হয়ে ওঠে যে সমস্ত হোটেলও বন্ধ করে রাখে হোটেল মালিকরা৷ পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীর সাহায্য নিতে বাধ্য হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ অনির্দিষ্টকালের জন্য পাহাড় বন্ধের ডাক দেয় বিমল গুরুংয়ের মোর্চা৷

তারপর থেকে পাহাড় সমস্যা আরও বেড়েছে৷ পুলিশের গুলিতে মোর্চা সমর্থকদের নিহত হবার অভিযোগ উঠেছে৷ পুলিশ কর্মীদেরও আহত হবার অভিযোগ উঠেছে, অভিযোগের তীর ছিল সোর্চা সমর্থকদের দিকে৷ মোর্চার ডাকে অনির্দিষ্টকালের বনধ শুরু হতেই অশান্তি ছড়িয়ে পড়ে পাহাড়ে৷ অনির্দিষ্টকালের জন্য বনধ শুরু হয়ে যাবার ২ দিনের মধ্যেই পর্যটক শুন্য হয়ে যায় পাহাড়৷ তারপর থেকে ৮০ দিন কেটে গেলেও শান্তি ফেরে নি পাহাড়ে৷ বন্ধ হয়ে গেছে বাঙালির দার্জিলিং অভিযান৷ বাঙালির প্রিয় ‘দিপুদা’ অর্থাৎ দীঘা পুরী দার্জিলিং থেকে ‘দা’ বাদ চলে গেছে৷ বাঙালি দার্জিলিং এর মুখ দেখে নি প্রায় ৮০ দিন ধরে৷

অশান্তি এখনও চলছে৷ পরপর ৬ দিন বিস্ফোরণ হয়েছে পাহাড়ে৷ থানার সামনে গ্রেণেড হামলায় মারাও গেছেন একজন সিভিক পুলিশ কর্মী৷ অশান্তি কমে নি৷ কেন্দ্রের নির্দেশে সেনা সরেছে৷ রাজ্যের নির্দেশে সরেছে অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনীও৷ তবুও শান্তি ফেরে নি পাহাড়ে৷ গ্রেণেড বিস্ফোরণ চলছে৷ উড়িয়ে দেবার চেষ্টা হয়েছে বাংলা সিকিম যোগাযোগের সেতু৷ পাহাড়ে লাগাতার অশান্তি চলছে৷ পর্যটক শূন্য দার্জিলিং৷ ম্যালে বেড়ান হচ্ছে না বাঙালির৷ টাইগার হিলের সূর্যোদয় দেখা এখনও বন্ধ৷

এসবের মাঝেই, মঙ্গলবার বিকেল ৪ টেয় নবান্নে বসছে সর্বদলীয় বৈঠক৷ পাহাড় সমস্যার সমাধানের লক্ষেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকা এই বৈঠক৷ পাহাড়ের বাকি সব দল থাকলেও আন্দোলনের পুরভাগে থাকা বিমল গুরুঙ্গের গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা নবান্নে আসবে কিনা আশঙ্কা ছিল তা নিয়েই৷ শেষ পর্যন্ত সুর নরম করেছে মোর্চাও৷ গোর্খা জনমুক্তি মুখপাত্র বিনয় তামাংয়ের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের প্রতিনিধি দল ইতিমধ্যেই কলকাতা এসে পৌঁছেছে নবান্নের এই সর্বদলীয় বৈঠকের জন্য৷

বৈঠকে মোর্চার তরফ থেকে গোর্খাল্যান্ড প্রসংঙ্গ উঠবেই৷ রাজ্যের তরফ থেকে অবধারিত ভাবেই তা নাকচ করে দেওয়া হবে৷ রাজ্যের তরফ থেকে গোর্খা টেরেটরিয়াল অ্যাডমিনেস্ট্রেশন বা জিটিএ এর ক্ষমতা বৃদ্ধি ও আর্থিক অনুদান বৃদ্ধির প্রস্তাব দেওয়া হতে পারে বলেই খবর৷ এমনকি পাহাড়ে শান্তি ফেরাতে আগ্রহী রাজ্য, জিটিএ তে আর্থিক দূর্নীতি নিয়ে চলা তদন্তও বন্ধ করে দিতে পারে বলেই খবর৷ তবে, গোর্খাল্যান্ডের দাবী থেকে সরে না এলে এই বৈঠক আদৌ ফলপ্রসু হবে কিনা প্রশ্ন এখন তা নিয়েই৷ মোর্চার তরফ থেকে ফের কেন্দ্রকে নিয়ে ত্রিস্তরীয় বৈঠকের দাবী উঠতে পারে৷

তবে, লাগাতার প্রায় ৮০ দিনের আন্দোলনের জেরে পাহাড়ে শুরু হয়েছে চরম খাদ্য সংকট৷ সমস্ত রকম ব্যবসা বন্ধে সংকটের মুখে পাহাড়ের আমজনতাও৷ সেইদিক দিয়ে বেশ চাপে মোর্চা নেতারা৷ তাই, মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাসে আপাতত: পাহাড়ে বনধ তুলে নিলেও নিতে পারে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা৷ সেই সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছে না রাজনৈতিক মহল৷

সোমবার গোটা দেশের পাশাপাশি রাজ্যের দৃষ্টিও ছিল ধর্ষক বাবা রামরহিমের বিচারের দিকে৷ তবে, আজ গোটা রাজ্যের পাশাপাশি গোটা দেশের দৃষ্টিও থাকবে নবান্নে এই বৈঠকের দিকেই৷ প্রায় ৮০ দিনের লাগাতার আন্দোলন শেষ হয়ে পাহাড়ে আবার শান্তি ফিরবে কিনা, সেই প্রশ্নের উত্তর পাওয়া গেলেও যেতে পারে আজকের বৈঠকে৷ আবার, পাহাড় সমস্যার কোনরকম সমাধান না হয়ে পরিস্থিতি সেই একই থাকতে পারে৷

কবে দার্জিলিং যেতে পারবো? ভ্রমণপিয়াসি বাঙালির আপাততঃ একটাই প্রশ্ন৷ আর এই প্রশ্নের উত্তর পেতেই মঙ্গলবার নবান্নের দিকে আশা নিয়েই তাকিয়ে গোটা রাজ্য৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।