ভাইরাসের সংক্রমণ আটকাতে গৃহবন্দি প্রায় গোটা বিশ্ব। চিনের পর আমেরিকা, ইতালি, ব্রিটেনের পেরিয়ে লকডাউন এখন ভারতেও। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে প্রকৃতি আপনাকে এক অভূতপূর্ব দৃশ্য দেখানোর জন্য অপেক্ষা করছে। মঙ্গলবার রাতেই দেখা যাবে সেই দৃশ্য।

বিজ্ঞানের ভাষায় যাকে বলে সুপারমুন। তবে মঙ্গলবার আকাশের যা দেখা যাবে তাকে সুপার পিঙ্ক মুন বলা হচ্ছে। পৃথিবীর একেবারে কাছে চলে আসবে উপগ্রহ চাঁদ। তাই তাকে আকাশে বেশ বড় আকারে দেখা যাবে।

৭ এপ্রিল, মঙ্গলবারই পৃথিবী থেকে সেই দৃশ্য দেখা যাবে। সূর্যাস্তের পর দেখা যাবে সেই দৃশ্য। চলতি বছরের উজ্জ্বলতম এবং বৃহত্তম পূর্ণিমা হতে চলেছে এটি। এপ্রিলের এই সুপারমুনকে ডাকা হচ্ছে গোলাপি চাঁদ নামে।

তবে চাঁদ কিন্তু প্রকৃতপক্ষে মোটেই এদিন গোলাপি হয়ে উঠবে না। তাই এই চাঁদকে ‘গোলাপি চাঁদ’ বলা হলেও তা আসলে কিন্তু মোটেই ঠিক না। তবে এই চাঁদ হতে চলেছে এ বছরের সবচেয়ে বড় এবং উজ্জ্বলতম সুপারমুন।

কি এই সুপারমুন?

পূর্ণিমার চাঁদ আর সুপার মুনের মধ্যে একটা তফাৎ আছে। পূর্ণিমার সম্পূর্ণ গোল দেখা যায় ঠিকই তবে সুপারমুনের সেই চাঁদ আকারে আরো বড় হয়। কারণ এই বিশেষ সময়ে পৃথিবীর উপগ্রহ চাঁদ পৃথিবীর একেবারে কাছে চলে আসে। তাই দেখতে অনেক বেশী উজ্জ্বল লাগে চাঁদকে।

চাঁদ যে কক্ষপথে ঘুরে সেই কক্ষপথের সব থেকে দূরের অংশটা কে বলা হয় অ্যাপজি আর সবথেকে কাছের অংশটা কে বলা হয় পেরিজি। সুপারমুনের সময় চাঁদ এই পেরিজিতে চলে আসে।

তাই এই সময় চাঁদকে অন্যান্য সময়ের তুলনায় ১৪ শতাংশ বেশি বড় দেখতে লাগে। আর সাধারণের থেকে ৩০ শতাংশ বেশি উজ্জ্বল হয় চাঁদ।

ভারতে ঠিক কখন দেখা যাবে এই সুপারমুন?

সূর্যাস্তের পর সন্ধ্যে হলেই আকাশের চাঁদ দেখা যেতে শুরু করবে। ঠিক রাত ৮ টা পাঁচ মিনিট থেকে চাঁদ বড় আকার নেবে। তখনই দেখা যাবে সুপারমুন। ৭ এপ্রিল থেকে ৮ এপ্রিল পর্যন্ত এই সুপারমুন দেখা যাবে। কিন্তু ৮ এপ্রিল যখন সুপারমুন দেখা যাবে তখন ভারতের আকাশে থাকবে সূর্যের আলো। তাই সুপারমুন রাখার জন্য একটাই রাত পাবে ভারত’।

কিভাবে দেখবেন সুপারমুন?

অন্যান্য গ্রহণের মত সুপারমুন রাখার জন্য আলাদা কিছু দরকার নেই। খালি চোখেই দেখা যাবে সেই দৃশ্য। কোনও প্রোটেক্টিভ গ্লাস লেন্স বলার প্রয়োজন নেই। একেবারে সরাসরি তাকিয়ে দেখা যাবে সেই অপূর্ব দৃশ্য।
তবে হ্যাঁ সুপারমুন রাখার সময় অবশ্যই সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স বজায় রাখতে হবে অর্থাৎ সামাজিক দূরত্ব রেখেই দেখুন। সবাই মিলে একসঙ্গে রাস্তায় বেরিয়ে এই দৃশ্য উপভোগ করার কোন প্রয়োজন নেই।