নয়াদিল্লি: দিন দিন টেকনোলজি যে কোথায় পৌঁছে যাচ্ছে, তা ভাবতে গেলে রীতিমতো অবাক হতে হয়। শেষ পর্যন্ত এবার হোয়াটসঅ্যাপও আনল ডেক্সটপ থেকে ভিডিও কল ও ভয়েজ কল করতে পারার সুবিধা। সংস্থার এই নতুন সুবিধায় ভীষণ ভাবে উপকৃত হতে চলেছেন বহু ব্যবহারকারী। বিশেষ করে যারা কর্মক্ষেত্রে এই মেসেজিং অ্যাপ ব্যবহার করেন তাঁদের সমস্যা এবার মিটতে চলেছে। এই হোয়ার্ক-ফ্রম-হোম অবস্থায় হোয়াটসঅ্যাপের তরফে এই সিদ্ধান্তে দারুণ ভাবে উপকৃত হবে ব্যবহারকারীরা।

বহুদিন ধরেই এই অ্যাপ ব্যবহারকারীদের দাবি ছিল ডেক্সটপ ভার্সানেও এর সমস্ত ফিচারের অ্যাক্সেস দিতে। কিন্তু এতদিন সামান্য কিছু সুবিধাই পাওয়া যেত ডেক্সটপ ভার্সানে। তবে এবার অন্ততপক্ষে কলের ফিচার ডেক্সটপ ভার্সানে যুক্ত হওয়ায় কিছুটা সুফল পাবেন সাধারণ মানুষ।

আরও পড়ুন – গ্যাস ও পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ৭ মার্চ পথে নামছেন মমতা

কীভাবে এই কল করতে হবে?

ডেক্সটপ থেকে আপনি যদি হোয়াটসঅ্যাপে কোনও ব্যক্তিকে ফোন করতে চান, সেক্ষেত্রে আপনার ডেক্সটপে অবশ্যই ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। এ নিয়মটা ফোনের মতোই।

হোয়াটসঅ্যাপকে আপনার কম্পিউটারের ওয়েব ক্যাম ও মাইক্রোফোনের অ্যাক্সেস দিতে হবে।

কল করার জন্য কোনও অডিও আউটপুট ডিভাইস এবং মাইক্রোফোন কম্পিউটারে অবশ্যই থাকতে হবে। নইলে ফোন করবেন কীভাবে?

এরপর হোয়াটসঅ্যাপে গিয়ে নিরদিষ্ট ব্যক্তির চ্যাট ওপেন করলে পেয়ে যাবেন কল বটন। সেটিতে ক্লিক করলেই হয়ে যাবে কল। এটি ভয়েজ কলের জন্য।

যদি আপনি ভিডিও কল করতে চান, সেক্ষেত্রে চ্যাট খুলে আপনাকে ভিডিও কল বাটনের ওপর ক্লিক করতে হবে।

আরও পড়ুন – ভুটানে সেনাপ্রধান সরানোর চক্রী ওয়াংমো ছিল ভারতীয় দূতাবাসের কর্মী

উল্লেখ্য, করোনার সময় থেকেই হোয়াটসআপে ভিডিও কলিং ও ভয়েজ কলিং-এর পরিমাণ অনেক বেড়েছে বলে জানাচ্ছে সংস্থা। এরসঙ্গে যুক্ত হয়েছে ওয়ার্ক ফ্রম হোম। সেদিকে নজর রেখেই হয়তো এই সুবিধা এবার ডেক্সটপে আনল হোয়াটসঅ্যাপ। ফেসবুক মালিকানাধীন এই সংস্থার এই পদক্ষেপের ফলে গুগল মিট, জুম সহ একাধিক অ্যাপ চরম প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্যে পড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.