স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিকের পর এবার ডিএলএড। পরীক্ষা শুরুর আগে থেকে হোয়াটসঅ্যাপে ঘুরছে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র। প্রশ্নপত্র ফাঁসের এই ঘটনা হঠাৎ করে নয়। পরীক্ষা শুরুর বেশ কিছুক্ষণ আগে তাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে প্রশ্নপত্র সরবরাহও করেছে এই চক্রের লোকেরা। সোমবার ডিএলএড-এর পরীক্ষা শুরুর অনেক আগেই প্রশ্নপত্র ফাঁসের এমনই ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমন্ডি এলাকায়। প্রশ্নপত্র ফাঁসের এই অভিযোগ পেয়ে তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন জেলাশাসক।

দক্ষিণ দিনাজপুরে যেখানে সেখানে গজিয়ে উঠেছে বিভিন্ন শিক্ষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে এই মুহুর্তে ডিএলএড ও বিএলএড মিলিয়ে জেলায় মোট ২০টি কলেজ রয়েছে। সোমবার ছিল ডিএলএড এর পার্ট-টু’রপরীক্ষা।

অভিযোগ, পরীক্ষা শুরুর প্রায় ঘন্টা তিনেক আগে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে এদিনের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে যায়। এমনই অভিযোগ সামনে এল কুশমন্ডি এলাকায় অবস্থিত বেসরকারি একটি কলেজের বিরুদ্ধে। পরীক্ষার্থীরদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে হলের ভেতর দেদার টোকাটুকির সুযোগ করে দিয়েছিল বেসরকারি ওই ডিএলএড কলেজ কর্তৃপক্ষ।

যদিও কলেজ কর্তৃপক্ষ এই ব্যাপারে কোনও রকম প্রতিক্রিয়া জানাতে রাজি হয়নি। বেসরকারি ওই কলেজের পরীক্ষা কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা পরীক্ষা নিয়ামক এনামুল শেখ জানিয়েছেন, পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর তবেই প্রকৃত প্রশ্নপত্র ও হোয়াটসঅ্যাপের প্রশ্নপত্র একই কি না তা যাচাই করা যাবে। এমনটাই নিয়ম বলে তিনি জানিয়েছেন।

দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলাশাসক নিখিল নির্মল জানিয়েছেন, এমনটা হবার কথা নয়। তবে প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ শুনে তিনি তা খতিয়ে দেখতে তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন। অভিযোগ সত্য প্রমানিত হলে অভিযুক্ত কলেজ গুলির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি। এবার ডিএলএড। ফলে পরীক্ষা শুরুর আগেই প্রশ্নপত্র ফাঁস কাণ্ডে, এবার নতুন করে যুক্ত হল শিক্ষক প্রশিক্ষণ পরীক্ষা ডিএলএডের নাম।

ঘটনার সঙ্গে জড়িত অসাধু চক্রের সদস্যরা চুক্তি অনুযায়ী পরীক্ষার আগে প্রশ্নপত্র পাইয়ে দেওয়ার নাম করে মোটা টাকাও তুলেছে বলে অভিযোগ ওঠে। এই ব্যাপারে যারা টাকা দিয়েছেন তাঁদের নিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপও তৈরী করা হয়।