স্বাগত নতুন বছর৷ ইংরাজি নববর্ষে শুভেচ্ছা৷ বর্ষবরণে মিশে থাকে আগামীর পথ চলার ভাবনা৷ এই লক্ষ্যে Kolkata 24×7 নতুন করে ভাবছে৷ এতে মিশে আছে ভবিষ্যৎ দেখার ইচ্ছে৷ আমরা এগিয়ে চলেছি, তাই পিছন ফিরে দেখা নয় আগামীকেই স্বাগত জানাচ্ছি৷ ২০১৮ সালের সম্ভাব্য কিছু ঘটনা তুলে ধরছি৷ বাংলা সংবাদমাধ্যমে এ এক ব্যতিক্রমী প্রচেষ্টা৷ দেশ থেকে বিদেশ, খেলা থেকে মেলা সমস্ত বিষয়ের সব খবর এক ক্লিকে৷ এই প্রতিবেদনে আন্তর্জাতিক খবরের দশদিক…

১. সরবেন পাক প্রধানমন্ত্রী

সবকিছু ঠিক থাকলে পাকিস্তানের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন শাহবাজ শরিফ৷ অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কাজ চালানো আসিফ খাকান আব্বাসি সরে যাবেন৷ পানামা পেপারসে আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ মাথায় নিয়ে দায়িত্ব ছাড়েন নওয়াজ শরিফ৷ ভাই শাহবাজকে পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মনোনীত করে গিয়েছেন৷ কূটনৈতিক পথ চওড়া করে হাত মেলাবেন পাক প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ? থাকছে এই প্রশ্ন৷

২. শেষ হচ্ছে কাস্ত্রো জমানা

২০১৮ সালেই দেশের প্রেসিডেন্টের পদ থেকে সরে যাচ্ছেন রাউল কাস্ত্রো৷ তিনি পদত্যাগ করলেই দেশটিতে শেষ হবে কাস্ত্রো যুগ৷ আগেই প্রয়াত হয়েছেন কিংবদন্তি নেতা ফিদেল কাস্ত্রো৷ তিনি রাষ্ট্র প্রধান থেকে সরে গিয়ে ভাই রাউলকে জায়গা করে দিয়েছিলেন৷ পরবর্তী রাষ্ট্র প্রধান হিসেবে দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি নতুন মুখ স্থির করেছে৷

৩. লাল চিন-লাল নেপাল সম্পর্ক

প্রতিবেশী দুই রাষ্ট্রের ক্ষমতায় বামপন্থীরা৷ ফলে নেপাল ও চিনের মধ্যে সম্পর্ক নিয়ে চিন্তিত হবে ভারত৷ কূটনীতিকদের ধারণা, নেপালের মাটিতে চিনা আধিপত্য বাড়বে৷ নেপালের ক্ষমতায় বামপন্থী-মাওবাদী জোট সরকার৷ সেই সুযোগ নিয়ে ভারতকে বেগ দিতে নেপালে প্রবল হস্তক্ষেপের চেষ্টায় থাকবে চিন৷

৪. আরব মুলুকে ঝড়

রাজনৈতিক ‘মরুঝড়’ উঠবে আরব মুলুকে৷ সৌদি আরবে ধর্মীয় আইন সংস্কারের পথ নিয়েছেন যুবরাজ মহম্মদ বিন সলমন৷ তিনি দেশটির আগামী বাদশা হবে৷ আধুনিক আরব সমাজ গড়তে তার অবস্থানে চিন্তিত দেশটির গোঁড়া সমাজ৷ ফলে আরবের মাটিতে রাজনৈতিক দোদুল্যমানতা তৈরি হতে পারে৷ সেই ধাক্কা লাগবে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে৷

৫. ভিসা আইনের গেরো

আমেরিকার ভিসা আইনে কতটা শিথিলতা আসবে ফিরে সেই দিকে তাকিয়ে দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশ৷ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের জেরে মার্কিন মুলুক প্রবাসীদের মধ্যে চিন্তা থেকেই যাচ্ছে৷ ভারত তার ব্যতিক্রম নয়৷ আমেরিকায় কর্মরতদের জন্য ভিসা আইনের ফাঁস আলগা করা নিয়ে চলবে চর্চা৷

৬. নজরবন্দি সু কি

মায়ানমারে ফের রাজনৈতিক ডামাডোলের আশঙ্কা থাকছে৷ দেশে গণতান্ত্রিক সরকার চললেও সেনাবাহিনী বকলমে তার নিয়ন্ত্রক৷ রোহিঙ্গা গণহত্যা ইস্যুতে ক্রমাগত কোণঠাসা হতে থাকা মায়ানমার সরকার সেনার অবস্থান নিয়ে নীরব৷ আশঙ্কা দেশের সর্বময় নেত্রী আউং সান সু কি-কে প্রায় কার্যকরহীন করে রেখেছে সেনা৷ তাঁকে আবারও গৃহবন্দি করার সম্ভাবনা থাকছে৷

৭. অখণ্ড থাকবে স্পেন ? 

পাল্টে যাবে ইউরোপের মানচিত্র৷ অখণ্ড থাকবে স্পেন ? এই প্রশ্ন থাকছে৷ স্পেন থেকে বিচ্ছিন্ন হতে চেয়ে গণভোটে জয় পেয়েছে কাতালোনিয়া প্রদেশ সরকার৷ পৃথক দেশ গড়ার ডাক দিয়েছে৷ সেই লক্ষ্যে নির্বাচনেও বড় জয় পেয়েছে কাতালানপন্থীরা৷ ফলে স্পেন ভাঙতে পারে এমনই সম্ভাবনা জমাট পাকছে৷ ইস্যুটি নিয়ে ইউরোপ সরগরম৷

৮. জেরুজালেম বিতর্ক

ইজরায়েলি-ফিলিস্তিনি দ্বন্দ্ব নতুন করে খুঁচিয়ে তুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷ তাঁর ঘোষণায় জেরুজালেম-কে ইজরায়েলি রাজধানী চিহ্নিত হলেও মিলছে না আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি৷ ইজরায়েল সরকারের বিরুদ্ধে বড়সড় হামলার প্রস্তুতি নিয়েছে সশস্ত্র ফিলিস্তিনি সংগঠন হামাস৷ ফলে রক্তাক্ত হবে জেরুজালেম সংলগ্ন এলাকা ও গাজা ভূখণ্ড৷

৯. চিন-ভারত দ্বন্দ্ব

বিতর্কিত ভূখণ্ড ডোকলাম ঘিরে দ্বন্দ্ব আরও বাড়বে৷ বিশ্বের দুই বৃহত্তম জনসংখ্যার দেশ ও পরমাণু শক্তিধর রাষ্ট্রের সীমান্ত উত্তপ্ত হবে৷ এমনই ধারণা করছেন বিশেষজ্ঞরা৷ এই দ্বন্দ্বের জের ছড়াবে দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতিতে৷ আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে পাক মদত পুষ্ট সন্ত্রাসবাদকে প্রশ্রয় দিয়ে চিন বিতর্ক খুঁচিয়ে তুলবে আরও৷

১০. বাংলাদেশে সহিংস নির্বাচন 

প্রতিবেশী রাষ্ট্রে জাতীয় নির্বাচন৷ সেই নির্বাচন ঘিরে যুযুধান দু পক্ষ আওয়ামি লিগ ও বিএনপি মুখোমুখি হবে কিনা তা নিয়ে চলছে চর্চা৷ গত নির্বাচন বয়কট করেছিল বিএনপি৷ ফলে তারা বৃহত্তম বিরোধী দল হলেও জাতীয় সংসদে নেই৷ অন্যদিকে কম ক্ষমতা নিয়ে প্রধান বিরোধী দল হয়েছে জাতীয় পার্টি৷ নির্বাচনে প্রবল হিংসাত্মক পরিস্থিতির আশঙ্কা থাকছে৷ সেই সঙ্গে থাকছে জঙ্গি হামলার সম্ভাবনা৷

Kolkata24x7 ব্যুরো

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.