সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় : করোনা নিয়ে অনেক সতর্কতা মূলক প্রচার চলছে। অনেকের মনে এই প্রশ্নও ঘোরাফেরা করছে যে আদৌ কী কী খাওয়া দাওয়া করা উচিৎ এই সময়ে। ডায়টেশিয়ান অঙ্কিতা সাহা মল্লিক জানালেন সেই খাবারের নিয়মাবলী। অঙ্কিতা কথায়, ‘কার্ফু হলেও পেটে তো আর তালা লাগানো যায় না….

তাই আগে কী খাবেন?
বেশি করে ফল খান, খোসা ছাড়িয়ে খেতে হয় এমন ফল খান, সবজি বাজার থেকে কিনে, ভালো করে ধুয়ে, খোসা ছাড়িয়ে খান। লেবু জাতীয় ফল খান, নিজের ইমিউনিটি বুস্ট আপ করুন। টক দই খান। আখরোট, আমন্ড এই জাতীয় বাদাম খান। সকালে গ্রীন টি খান। নিজের সিস্টেম ক্লিয়ার রাখুন। বাসি খাবার এড়িয়ে চলুন। বাজার চলতি সাবধান বাণী থেকে সাবধান মুরগির মাংস খাবেন কি না? অবশ্যই খাবেন। ভালো করে রান্না করে খাবেন। ডিম ও ভালো করে সেদ্ধ করে খান। আইস ক্রিম, কোল্ড ড্রিঙকস খাবেন কি না? অবশ্যই খান। তবে যত টা প্রয়োজন তত টা। এগুলোতে করোনা ভাইরাস নেই। কিন্তু এগুলো খেয়ে ঠান্ডা লাগলে আপনার ইমিউনিটি এফেক্টেড হবে যেটা এই সময়ে বাঞ্ছনীয় না।


কী খাবেন না ?
অঙ্কিতা জানিয়েছেন, ১)বাইরের খাবার খাবেন না। বাইরে যারা খাবার বানান, তাদের হাইজিন সম্পর্কে আমরা কিছুই জানি না। তাই নিজের সাবধানতার জন্য বাইরের খাবার এড়িয়ে চলুন।

অঙ্কিতার করোনা বিষয়ক আরও কিছু জরুরী তথ্য: ১. আপনি যদি ঘরেই থাকেন, পাবলিক প্লেস এ না বেরোন, তাহলে মাস্ক পড়ার দরকার নেই। ২. সাধারণ হাঁচি কাশি হলে তখনই মাস্ক পড়ুন, যখন আপনি অন্য লোকজনের সংস্পর্শে আসছেন। ৩. মনে রাখবেন যারা হাসপাতালে কাজ করেন, একমাত্র তাদেরই সর্বক্ষণ মাস্ক পড়া আবশ্যক। ৪. করোনা ভাইরাসের গঠনগত কারণের জন্য এটি সারফেসে অনেকক্ষন আটকে থাকে। তাই হাত পা, জামাকাপড় ভালো করে ধোয়া প্রয়োজন। ৪. অযথা স্যানিটাইজার কেনার জন্য লাইন দেবার প্রয়োজন নেই, সাধারণ সাবান এও কাজ চলবে। ৫. অযথা নাক, চোখ, মুখে হাত দেবেন না। বাড়িতে বাইরের লক যারা আসে, তাদেরও বলুন ভালো করে হাত পা ধুতে। ৬. সাধারণ সর্দি কাশি হলে, ফেলে না রেখে ডাক্তার দেখা

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।