দেবময় ঘোষ: জম্মু ও কাশ্মীরে উৎকন্ঠার পরিস্থিতিতে অনেকেরই মনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে যে আর্টিকল ৩৫ এ ( Article 35A) এবং আর্টিকল ৩৭০ (Article 370) তে ঠিক কি রয়েছে। সোজা কথায় বলে যায়, এই দুই ধারার বিলোপের মাধ্যমে মোদী সরকার জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদাকে খর্ব করে দেবে। আবার থেকে দেশের আর ৫ টা রাজ্যের মতোই থাকবে জম্মু কাশ্মীর। এবার কাশ্মীরি না হলেও সেখানে নিয়ে জমি বাড়ি সম্পত্তি কিনতে পারবে আম জনতা। জন্মগত কাশ্মীরবাসী না হলেও কাশ্মীরে ভোটাধিকার থাকবে ভারতবাসীর। অর্থাৎ কাশ্মীর শুধুমাত্র কাশ্মীরের রইলো না। সারা দেশের বাকি অঙ্গরাজ্য গুলির মতো সকল ভারত বাসীর অধিকার এবার থেকে থাকবে কাশ্মীরে।

কী এই Article 35A তে?

আর্টিকলে ৩৫ এ -তে জম্মু ও কাশ্মীরের বাসিন্দা ঠিক কারা তা ঠিক করে দেওয়া হয়েছে। ১৯৫৪ সালে একটি অর্ডারে (শুধু মাত্র জম্মু ও কাশ্মীর সম্পর্কিত) এটি সংবিধানে জায়গা পায়। প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর কেন্দ্রীয় সরকারের পরামর্শে রাষ্ট্রপতি রাজেন্দ্র প্রসাদ আর্টিকলে ৩৭০ এর মাধ্যমে আর্টিকলে ৩৫ এ অর্ডারকে সংবিধানে জায়গা দেন। ১৯৫৬ সালে যখন জম্মু ও কাশ্মীরের সংবিধান গৃহীত হয়, তখন, এই আইনের আরও সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা পাওয়া যায়। আর্টিকলে ৩৫ এ অনুযায়ী, ১৯৫৪ সালের ১৪ মে থেকে যাঁরা জম্মু ও কাশ্মীরের বাসিন্দা বা যাঁরা ১০ বছর ওই রাজ্যে বসবাস করছেন, তাঁরা সেখানে জমি বাড়ি সম্পত্তি কিনতে পারবেন। তাঁরাই সরকারি চাকরি পাবেন। অন্যরা নয়।

কিন্তু ২০১৯ সালের মোদী সরকারের নতুন দৃষ্টিভঙ্গি আলাদা। তারা কাশ্মীরকে দেশের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ মনে করে। জম্মু ও কাশ্মীর দেশের অন্যান্য অঙ্গ রাজ্যের থেকে আলাদা নয়। সেক্ষেত্রে, আর্টিকেল ৩৫ এ এবং আর্টিকেল ৩৭০ এর কোনও মূল্য নেই।

Article 370 ঠিক কি বলছে?

আর্টিকলে ৩৭০ নিয়েই জম্মু ও কাশ্মীরের রাজনৈতিক নেতৃত্বের সঙ্গে কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদী সরকারের মূল সংঘাত। এই আইন জম্মু ও কাশ্মীর বিধানসভাকে ওই রাজ্যের জন্য আলাদা সংবিধান তৈরির ক্ষমতা দেয়। যে ভারতীয় গণতন্ত্রে নজিরবিহীন। সাধারণ ভারতবাসী হিসাবে একবার ভেবে দেখুন, একটি অঙ্গ রাজ্য ভারতের সংবিধানের পাশাপাশি নিজের সংবিধান তৈরি করে নিয়েছে। যা মানতে নারাজ মোদী সরকার। তাহলে, স্বাধীন ভারতের আর সম্মান কি রইলো? জম্মু ও কাশ্মীরকে ভারতের এক স্বতন্ত্র রাজ্য পরিণত করা হয়েছিল আর্টিকলে ৩৭০ বলে।

১৯৪৭ সালে ভারত স্বাধীন হওয়ার পর ওই আইনের সাহায্যে জম্মু ও কাশ্মীরের সঙ্গে ভারত সরকারের সম্পর্ক ঠিক রাখার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু গত ৭০ বছরের ইতিহাস বলছে সম্পর্ক আরও বিগড়েছে। সেক্ষেত্রে, জম্মু ও কাশ্মীরকে আর আলাদা চোখে দেখতে রাজি নন নরেন্দ্র মোদী। ভারতের বাকি রাজ্য গুলির মতোই থাকবে জম্মু ই কাশ্মীর। ভয়ঙ্কর ভূ-স্বর্গ কে শান্ত করার অঙ্গীকার নিয়েছেন মোদী।