হায়দরাবাদ: মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জংগি হিসেবে চিহ্নিত করেছে রাষ্ট্র সংঘ। যা ভারতের বিরাট কূটনৈতিক সাফল্য বলে দাবি করছে নয়াদিল্লি। যদিও বিষয়টিকে এখনই সাফল্য বলে মানতে নারাজ সাংসদ তথা এআইএমআইএম প্রধান আসাদুদ্দিন অয়াইসি।

চলতি মাসের প্রথম দিনে জৈইশ প্রধান মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি বলে ঘোষণা করেছে রাষ্ট্র সংঘ। ভারত ২০০৯ সাল থেকে এই দাবি করে আসছিল। একাধিকবার এই বিষয়ে রাষ্ট্র সংঘে ভারত দাবি জানিয়ে আসছিল। চিন ভেটো প্রয়োগ করার কারণে যা সম্ভব হয়ে ওথেনি।

দশ বছর বাদে ২০১৯ সালের মে মাসে চিন অবস্থান বদল করেছে। যার কারণে জৈইশ প্রধান মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণা করতে সক্ষম হয়েছে রাষ্ট্র সংঘ। বিষ্যটিকে ভারতের বিরাট কূটনৈতিক সাফল্য বলে দাবি করেছে নয়াদিল্লি। সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনেও বিষয়টিকে হাতিয়ার করে প্রচার করতে শুরু করে দিয়েছে বিজেপি শিবির।

এই অবস্থায় মাসুদ আজহার প্রসঙ্গ নিয়ে মুখ খুলেছেন হায়দরাবাদের সাংসদ আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। এই তাঁর প্রথম প্রশ্ন, “চিনের সঙ্গে আমরা কি সমঝোতা করেছি?” এরপরেই তিনি বলেন, “২০০৮ সালে জংগি নেতা হাফিজ সৈয়দকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছিল। সে কী ওই দেশের মাটিতে জনসভা করছে না? ওর দল কি পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনে লড়াই করেনি?”

হাফিজ সৈয়দকে কালো তালিকাভুক্ত করার বিষয়টির সঙ্গে মাসুদ আজহারের আন্তর্জাতিক জঙ্গির তকমার তুলনা করেছে আসাদুদ্দিন। তিনি বলেছেন, “খাতায় কলমে কালো তালিকাভুক্ত হওয়াকে যদি বিরাট সাফল্য বলে দাবি করা হয় তাহলে বলতে হচ্ছে যে এটা এখনই কোনও সাফল্য নয়।”