মুম্বই: দু’বার দেখা হয়েছিল দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে। কি বলেছিনে দাউদ। সেই সাক্ষাৎ এর কথাই নিজের অটোবায়োগ্রাফি ‘খুললাম খুল্লা-আনসেন্সর্ড’ বইতে লিখলেন বলিউডের কিংবদন্তী অভিনেতা ঋষি কাপুর। শৈশবের কথা, কিভাবে নীতু সিং এর সঙ্গে দেখা, কিভাবে স্টারডমের সঙ্গে পরিচিতি সব কথাই উল্লেখ করেছেন অভিনেতা। কিন্তু দাউদের সঙ্গে সাক্ষাৎ এর ঘটনা সবথেকে আকর্ষণীয়।

ঋষি কাপুর লিখেছেন, দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে প্রথম ১৯৮৮ সালে দুবাইতে। আশা ভোঁসলে-রাহুল দেব বর্মনের অনুষ্ঠানের জন্যই ঋষি তখন তাঁর এক বন্ধুর সঙ্গে দুবাইতে ছিলেন। দাউদের এক লোক ঋষি কাপুরকে দেখে এগিয়ে আসেন এবং একটি ফোন দিয়ে বলেন, “দাউদ সাব আপনার সঙ্গে কথা বলতে চান”। তখন দাউদ ঋষি কাপুরকে নিজের বাড়িতে আসার নিমন্ত্রণ জানান। সঙ্গে সঙ্গে দাউদের ওই লোক ঋষি কাপুর ও তাঁর বন্ধুকে গাড়িতে করে নিয়ে যান দাউদের বাড়িতে। বাড়িতে পৌঁছলে দাউদ তাঁদের চা ও বিস্কুট খেতে দেন। ঋষির সঙ্গে আড্ডায় দাউদ নিজের বহু অপরাধমূলক কাজের লথাও তাঁকে বলেন, সঙ্গে এও বলেন যে সেই কাজগুলির জন্য তার কোনও অনুশোচনা নেই। এরপর দাউদের বাড়ি থেকে বেরোনর সময় দাউদ ঋষিকে ডেকে বলেন, “কখনো কিছুর প্রয়োজন হলে, টাকা বা যা কিছু, আমাকে নির্দ্বিধায় জিজ্ঞাসা করবেন”। এই প্রস্তাবে ঋষি কাপুর কোনও ইতিবাচক উত্তর দেননি ঋষি কাপুরকে।

এরপর আবার ১৯৮৯ সালে দুবাইতেই দাউদের সঙ্গে দেখা হ্য় তাঁর। দুবাই এর এক লেবানীজ দোকানে স্ত্রী নীতুর সঙ্গে জুতো কিনতে গেছিলেন ঋষি কাপুর। তখন সেখানে দাউদও উপস্থিত ছিলেন। তার সঙ্গে ছিল ৮ জন রক্ষী। দাউদের হাতে একটি মোবাইল ফোনও ছিল। এবারও দাউদ ঋষিকে দোকান থেকে কিছু কিনে দিতে চান। আবারও ঋষি না করে দেন দাউদের প্রস্তাবে। তখন দাউদ নিজের মোবাইল ফোন নম্বর দেন ঋষিকে। কিন্তু ভারতে তখনও মোবাইলের চল না আসায় ঋষি তাঁকে কোনও ফোন নম্বর দেননি।

দাউদ ইব্রাহিম ১৯৯৩ সাল থেকে ভারতবর্ষে একের পর এক দুর্ঘটনা ও অপরাধমূলক ঘটনা ঘটিয়েছেন। তাঁকে নিয়ে প্রচুর তৈরি হয়েছে বলিউডে। কিন্তু ঋষি কাপুরের সঙ্গে যতবারই দেখা হয়েছে অত্যন্ত ভদ্র ব্যবহার করেছেন বলে বইটিতে লেখেন ঋষি কাপুর। কিন্তু তিনি বুঝতে পারেন না যে হঠাৎ তিনি ভারতে এত অপরাধমূলক কাজ ঘটালেন কেন। তিনি লেখেন, “দাউদ সবসময়ই আমার সঙ্গে ভালো ব্যবহার করেছেন। কিন্তু সব খুব তাড়াতাড়ি বদলে গেল। আমি জানিনা ও কেন আমার দেশের সঙ্গে এমন করা শুরু করল। সেই জুতোর দোকানে দেখা হওয়ার পর আর আমার আর ওর সঙ্গে কোনও কথা হয়নি”।

#Along with the good, fame has also brought me in contact with people of dubious character. One of them was Dawood Ibrahim. By Rishi Kapoor in his autobiography.