পার্সলে পাতার নাম আমরা অনেকেই শুনেছি৷ কিন্তু এর সঠিক ব্যবহার ক’জন জানি?  বাজারে পার্সলে পাতা কিনতে পাওয়া যায় দেখেছি৷ তবে, এই পাতা খায় না মাখে, কিস্যু জানিনা৷ আজ আমরা এই পার্সলে পাতার অভিনব কিছুগুণ আপনাদের জানাবো৷

তবে, সব থেকে উপকারি বিষয় হল এই পার্সলে গরমকালে বা বর্ষায় আমাদের ত্বককে রক্ষা করতে খুব সাহায্য করে৷ক্রান্তিয় এবং উপ-ক্রান্তিয় অঞ্চলের আবহাওয়ার পরিবর্তনের ওপর প্রভাব সৃষ্টি করে এই পার্সলে গাছ বা বাগান৷ পার্সলে পাতার বাগান জল নিকাষি ব্যবস্থায় সহায়তা করে৷আমেরিকান রন্ধন পদ্ধতিতে পার্সলে পাতার প্রচুর ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়৷ মাছ, মাংস, ভাত প্রভৃতি রান্নায় এই পাতা কখনও কখনও ব্যবহৃত হয় আবার কখনও শুধুমাত্র গার্নিশিং এর কাজে লাগে৷ পার্সলে পাতায় ফ্ল্যাভেনয়েড, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যাপিজেনিন, ফলিক অ্যাসিড, ভিটামিন k, ভিটামিন C ভিটামিন A থাকে৷

আরও পড়ুন: যৌবন ধরে রাখার ছোট্ট ‘গোপন ফর্মুলা’!

এবার আসল তথ্যে আসা যাক, যেটার জন্য আপনারা সবাই অপেক্ষা করে আছেন৷ নিজেকে সুন্দর দেখতে কে না চায় বলুন? তবে, সুন্দর হওয়ার লোভে সবাই আজকাল বড্ডো বেশি পার্লারে সময় কাটায়৷ অথচ আমরা যদি একটু পুরাতন কালের মডার্ন সুন্দরীদের ব্যপারে জানি তবে, জানতে পারব যে তাদের সময় এতো প্রযুক্তি বা পার্লার ছিলইনা৷ তারা কিন্তু প্রাকৃতিক সমস্ত ভেষজ সামগ্রীর ব্যবহারে নিজেদের সুন্দরী করে তুলতেন৷নীম, জবা গাছের পাতা বা আরও অনেক পাতার মতোই পার্সলে এমনই এক ধরনের পাতা৷

আরও পড়ুন: যৌবন ধরে রাখার ছোট্ট ‘গোপন ফর্মুলা’!

পার্সলে পাতাকে কুচিয়ে নিন প্রথমে৷ গ্যাসে জল গরম করুন৷ জল ফুটতে শুরু করলে তাতে পাতাগুলো দিয়ে ভাল করে ফোটান৷ পাতা থেকে সবুজ নির্যাস বেরিয়ে আসবে৷এরপর ওই জল কে ভাল করে ঠাণ্ডা করে ফ্রিজের বরফের ট্রে’তে ঢেলে দিন৷ডি-ফ্রিজে ঢুকিয়ে দিন৷ ওগুলো সবুজ রঙের বরফের আকৃতি নেবে৷

আরও পড়ুন: রোজ রোজ কলা খেয়ে সুস্থ থাকুন

এরপর আপনি ঘর থেকে বেরোনোর সময় বা যেসব সময় বরফ ব্যবহার করতেন সেসময় পার্সলের বরফের ওই টুকরোগুলো ব্যবহার করুন৷ এই একইাবে নিম পাতাকেও ব্যবহার করা যায়৷ এর ফলে ত্বক উজ্বল থাকে ও পরিষ্কার থাকে, ব্রণর সমস্যা এড়ানো যায়, তৈলাক্ত ত্বকে অতিরিক্ত তেল কমাতে সাহায্য করে৷

আরও পড়ুন: সব ভুঁড়ির জন্য একই দাওয়াই নয়!

Comments are closed.