অ্যান্টিগা: ক্যারিবিয়ান সফরে প্রথম টেস্টের প্রথমদিন থেকেই জাঁকিয়ে বসেছে টিম ইন্ডিয়া৷ প্রথমে রানের পাহাড়ে চড়ে বসা এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ফলো-অন করিয়ে এখন চালকের আসনে বিরাট কোহলির ভারত৷ চতুর্থ দিন খেলা শুরুর আগে দেখে নেওয়া যাক প্রথম টেস্টে তৃতীয়দিনের ৫টি মনে রাখার মতো মুহূর্ত৷

৫৷ ক্রিগ বার্থওয়েট- দ্য লং ফাইটার

শুরু থেকে উইকেট হারিয়ে চাপের মুকে পড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলকে কিছুটা ভদ্রস্ত জায়গায় নিয়ে গেলেন এই ক্যারিবিয়ান ওপেনার৷ উইকেটে কামড়ে পড়ে ২১৮ বল খেলে করলেন মহা মূল্যবান ৭৪ রান৷

৪৷ মিডল অর্ডারকে ধসিয়ে দিলেন শামি

ক্যারিবিয়ান ওপেনার রাজেন্দ্র চান্দ্রিকাকে আউট করে শুরুতেই ধাক্কা দিয়েছিলেন৷ তারপর কিছুটা নিস্প্রভ থাকলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ মিডল অর্ডারে ধস নামানোর কাজটি করলেন এই বাংলার ডানহাতি পেসার৷ একে একে তুলে নেন ড্যারেন ব্রাভো, মার্লন স্যামুয়েলস এবং ব্লাকউডকে৷ প্রথম ইনিংসে তাঁর শিকার টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যান৷

৩৷ লেজটা ছেঁটে দিলেন উমেশ

মহম্মদ শামি যেখানে শেষ করলেন উমেশ যাদব যেন সেখান থেকেই শুরু করলেন৷ টেল-এন্ডারদের দ্রুত ছেঁটে ফেলার কাজটি ভালই করলেন এই ডানহাতি পেসার৷ হাত ঘুরিয়ে তিনিও পেলেন চার উইকেট৷

২৷ ঋদ্ধির নজিরবিহীন কিপিং

গ্লাভস হাতে এই বঙ্গসন্তান উইকেটের পিছনে এদিন ছিলেন দুরন্ত৷ প্রথম কোনও উইকেটকিপার হিসেবে একটি ইনিংসে পাঁচ বা তার বেশি ব্যাটসম্যানকে আউটের পিছনে অবদান রাখলেন৷ তাঁর শিকার ৬জন৷

১৷ ইনিংস পরাজয়ের আতঙ্কে ক্যারিবিয়ানরা

তৃতীয়দিনের শেষে খেলার যা পরিস্থিতি তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ কিন্তু ইনিংস পরাজয়ের দিকেই এগোচ্ছে বলা যেতে পারে৷ ৫৬৬ রানের পাহাড় নিয়ে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ২৪৩ রানে শেষ হয় তাদের ইনিংস৷ ফলো-অন করতে নেমেও মুখ থুবড়ে পড়েছে আয়োজক দেশ৷ জয়ের গন্ধ পাচ্ছে ভারত৷

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।