করাচি: তিনিই একমাত্র ক্রিকেটার যিনি দু’বার টি-২০ বিশ্বকাপ জিতেছেন৷ দু’বাবের বিশ্বকাপ জয়ী ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক ডারেন স্যামি পাকিস্তানের নাগরিক হওয়ার জন্য আবেদন করলেন৷

দেশকে দু’বার টি-২০ বিশ্বকাপ এনে দেওয়া এই ক্যারিবিয়ান ক্যাপ্টেন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে টি-২০ লিগ খেলে বেড়াচ্ছেন৷ খেলেছেন আইপিএলেও৷ আইপিএলে সফল না-হলেও পাকিস্তান সুপার লিগ তথা পিএসএল খেলতে এই মুহূর্তে পাকিস্তানে রয়েছেন স্যামি৷ পিএসএল-এর পঞ্চম সংস্করণে পেশোয়ার জালমিকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনি৷ স্যামিকে সাম্মানিক নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে দেশের প্রেসিডেন্টের কাছে।

স্যামির নাগরিকত্ব পাওয়ার বিষয়টি দেখভাল করছেন পাকিস্তান সুপার লিগে যে দলের হয়ে খেলেন সেই পেশোয়ার জালমি৷ ক্যারিবিয়ান এই অল-রাউন্ডারও আশায় রয়েছেন, শীঘ্রই তাঁর আবেদন গ্রহণ করে নেওয়া হবে৷ পিএসএল-এর আগে নিয়মিত আইপিএলেও খেলতেন স্যামি। তবে তিন মরশুমে আলাদা আলাদা ফ্র্যাঞ্চাইজির জার্সিতে খেলেছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ, আরসিবি এবং কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের। ২০১৭ সালে শেষবার প্রীতি জিন্টার ফ্র্যাঞ্চাইজি কিংস ইলেভেনের হয়ে শেষবার আইপিএলে অংশ নিয়েছেন তিনি।

পিএসএল ফ্র্যাঞ্চাইজি কর্তা জাভেদ আফ্রিদি ক্রিকেট পাকিস্তান.কম.পিকে-কে জানিয়েছেন, ‘স্যামিকে যাতে দেশের সাম্মানিক নাগরিকত্ব দেওয়া হয়, সেই প্রস্তাব আমরা পাঠিয়েছি। আপাতত এই প্রস্তাব প্রেসিডেন্টের কাছে পাঠানো হয়েছে। পিসিবি চেয়ারম্যানকেও আমরা অনুরোধ করেছি, উনি যেন বার্তা দেন। এই আবেদন গৃহীত হতেই পারে।’

ড্যারেন স্যামি টানা পাঁচ মরশুম পাকিস্তান সুপার লিগে খেলছেন। বারেবারেই পাকিস্তানে এসে সেদেশের প্রতি ভালোবাসার কথা জানিয়েছেন। দেশে কিছুদিন আগেই পুনরায় ক্রিকেট চালু করা হয়েছে। স্যামিই প্রথম আন্তর্জাতিক তারকা ক্রিকেটার, যিনি পাকিস্তানের মাটিতে খেলতে রাজি হয়েছিলেন। তখন থেকেই এই ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটারের পাকিস্তান প্রেম৷