কলকাতা: রাজ্য সরকারের বড় ঘোষণা৷ রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলে চুক্তির ভিত্তিতে দু’হাজার কম্পিউটার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে৷ তবে কবে এবং কিভাবে এই নিয়োগ হবে তা জানা যায়নি৷

বুধবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান,দু’হাজার কম্পিউটার শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত রাজ্য মন্ত্রিসভায় পাশ হয়ে গিয়েছে৷ দ্রুত সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত করা হবে৷ আপাতত মন্ত্রিসভার এই সিদ্ধান্ত পাঠানো হয়েছে স্কুল শিক্ষা দফতরে৷ দফতর মন্ত্রিসভার এই সুপারিশের সবদিক খতিয়ে দেখেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে৷ তারপরেই এই নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে৷

এর আগে মমতা সরকার বাংলায় শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়৷ তখন বলা হয়েছিল ১৭ হাজার কম্পিউটার শিক্ষক নিয়োগের প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে৷ রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলে ওই শিক্ষক নিয়োগ করা হবে বলে ঠিক করা হয়েছে৷

উত্তর প্রাথমিকে কম্পিউটার শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। তাই প্রচুর কম্পিউটার শিক্ষকও প্রয়োজন৷ সেকথা মাথায় রেখেই সরকার এগোচ্ছে৷ তাই আপাতত দু’হাজার কম্পিউটার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে৷

সূত্রের খবর,পাঁচ থেকে ছয় হাজার আইসিটি শিক্ষক রয়েছেন। তাঁদের সবাইকে এখন এর অধীনে আনা সম্ভব হচ্ছে। অনেকের গ্র্যাজুয়েশন না হওয়াতেই এই বিপত্তি। শুধু তাই নয়, অনেকের ছ’মাসের প্রশিক্ষণ রয়েছে।

কিন্তু যাঁদের প্রয়োজনীয় যোগ্যতা রয়েছে, তাঁদেরকে এর অধীনে আনার চেষ্টা করা হবে বাংলা ওই সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে। যদিও দীর্ঘদিন আইসিটি শিক্ষকরাই স্কুলের কম্পিউটার শিক্ষার ভার সামলেছেন। বেতন সহ একাধিক বিষয়ে সমস্যা রয়েছে তাঁদের।

কিন্তু সেই সমস্যা কাটিয়েই পড়ুয়াদের কম্পিউটার শিখিয়েছেন তাঁরা। কিন্তু যোগ্যতা না থাকায় অনেককে নিয়েই তৈরি হয়েছে সমস্যা। তবে কম্পিউটার শিক্ষক নিয়োগের বিষয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে ছাড়পত্র নেওয়া হয়েছে৷ সবদিক খতিয়ে দেখে এবার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে৷ কিন্তু তার আগেই এই আইসিটি শিক্ষকদের এর অধীনে আনার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।

উল্লেখ্য,রাজ্যের উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে অন্ততপক্ষে ৫০০ টি স্কুলে কম্পিউটার পড়ানোর জন্য বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগ করা হয়৷ ২০০০ সালে এই প্রকল্পটি প্রথম চালু করা হয়৷ যার মেয়াদ শেষ হয় ২০১২ সালের৷ কিন্তু সরকারি ভাবে নিয়োগ দাবিতে বিভিন্ন সময় আন্দোলনে নামেন কম্পিউটার শিক্ষকদের একাংশ৷ পরে তাঁদের কাজে বহাল রাখা হয়৷