India police

নয়াদিল্লি: চাকরির বাজার খুবই খারাপ। যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও চাকরি মেলেনি, সম্মানজনক চাকরি পাওয়ার আশায় ঘুরে বেড়াচ্ছে অনেক ছেলেমেয়ে। বেসরকারি সংস্থায় চাকরির ক্ষেত্রেও নেই কোনো নিরাপত্তা। করোনা আবহে বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত অনেকেই চাকরি হারিয়েছেন। তাই সম্মান ও চাকরির নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে অনেকেই সরকারি চাকরির প্রস্তুতি নিচ্ছেন। সরকারি চাকরির মধ্যে পুলিশের চাকরি অন্যতম। বেশ কিছুদিন আগে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে কনস্টেবল ও লেডি কনস্টেবল পদে ৮৬৩২ জনকে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ রিক্রুটমেন্ট বোর্ড। কিন্তু করোনার জন্য পরীক্ষা নিয়ে দেখা দিয়েছিল অনিশ্চয়তা।

সম্প্রতি জানা গেছে কনস্টেবল ও লেডি কনস্টেবল পদে নিয়োগের পরীক্ষা আগামী ১৮ জুলাই হওয়ার সম্ভাবনা। এই মর্মে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ রিক্রুটমেন্ট বোর্ড রাজ্যের সব জেলার জেলা শাসককে পরীক্ষার ব্যাপারে যাবতীয় আয়োজন করার আবেদন করেছে। ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে ১৮ ই জুলাই, বেলা ১২ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত।

পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের মাধ্যমে জানা গেছে এই পদের জন্য প্রায় ৯ লক্ষ পরীক্ষার্থী আবেদন করেছেন। লিখিত পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড পরীক্ষার ১০ দিন আগে দেওয়া হবে । মোট চারটি পর্যায়ে হবে এই পরীক্ষা প্রথমে হবে প্রিলিমিনারি। এই পরীক্ষা পাশ করলে হবে শারীরিক দক্ষতার পরীক্ষার। সেই পরীক্ষা উত্তীর্ণ হলে হবে মেন পরীক্ষা। তারপর হবে পার্সোনাল ইন্টারভিউ। প্রিলি পরীক্ষায় ১০০ টি অবজেকটিভ প্রশ্ন থাকবে, মোট ১০০ নম্বরের পরীক্ষা। জেনারেল নলেজ ৫০ নম্বর, মাধ্যমিক মানের অঙ্ক ৩০ নম্বর, রিজনিং ২০ নম্বর। সময় ১ ঘণ্টা।

যাঁরা এই পরীক্ষার জন্য আবেদন করেছেন এবং প্রস্তুতি নিয়েছেন এখন থেকেই তাদের এখন থেকে পরীক্ষার জন্য নিজেকে আরও ভালো করে তৈরী করা প্রয়োজন। বিভিন্ন বই , নোটস এর পাশাপাশি ইউটিউব থেকে পড়াশুনা করার সুবিধা রয়েছে। অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোড ও পরীক্ষা সংক্রান্ত যে কোনো তথ্যের জন্য www.wbpolice.gov.in এই ওয়েবসাইটটি দেখুন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.