কলকাতা:  বাংলায় ক্রমশ বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। খোঁজ মিলল আরও এক করোনা আক্রান্তের। জ্বর এবং শ্বাসকষ্ট নিয়ে দমদমের আইএলএসে এই মুহূর্তে চিকিৎসাধীন ৫৫ এর এক মহিলা। সম্প্রতি তাঁর লালরসের পরীক্ষা করা হয়। আজ মঙ্গলবার রাতে রিপোর্ট আসে তাঁর। যেখানে করোনার উল্লেখ রয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ইতালির মিলান থেকে ফেরেন এই মহিলা।

প্রায় একমাস বাড়িতেই ছিলেন। গত ২০ মার্চ জ্বর আসে তাঁর। সঙ্গে প্রবল শ্বাসকষ্টের সমস্যা তৈরি হয়। ক্রমশ অবস্থার অবনতি হতে থাকে। এরপর গত ২৮ তারিখ তাঁকে ভর্তি করা হয় দমদমের ওই বেসরকারি হাসপাতালে। হাসপাতালে আইসোলেশনেই রাখা হয়েছে তাঁকে। জানা যাচ্ছে এদিন তাঁর পরীক্ষার রিপোর্ট আসে। সবথেকে বড় এটাই যে এই মুহূর্তে মহিলার স্বামীও হাসপাতালে ভর্তি। যদিও তাঁর এখনও করোনা সন্দেহ করা হলেও রিপোর্ট আসেনি।

পুরো বিষয়টির উপর নজর রাখছে স্বাস্থ্যদফতর। বাড়িতে থাকাকালীন এই মহিলা কার কার সঙ্গে দেখা হয়েছে বা করেছেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। শুধু তাই এলাকায় আর কারোর শরীরে কোনও উপসর্গ রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অন্যদিকে, অন্যদিকে, এগরায় করোনায় আক্রান্ত হলেন আরও একজন। এবার মারণ ভাইরাসের শিকার হলেন এক চিকিৎসকের জামাইবাবু। আজ রাতে ওই চিকিৎসকের জামাইবাবুর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। জানা গিয়েছে, আক্রান্তের বাড়ি এগরা পুরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডে। সম্প্রতি ওই চিকিৎসকের পরিবারে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান হয়েছিল। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩১।

প্রসঙ্গত, এদিন সকালেই দুপুরেই বেলঘড়িয়াতে একজনের শরীরে করোনার ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়। আক্রান্ত উত্তর ২৪ পরগনার বেলঘরিয়ার বাসিন্দা। বেলঘরিয়ায় জেনিথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আজ মঙ্গলবার লালারস পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। আক্রান্তের বয়স ৫৭। গত ২৩ মার্চ থেকে অসুস্থ ছিলেন। সোমবার নমুনা নেওয়া হয়েছিল, আজ মঙ্গলবার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।