ফাইল ছবি।

স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : নয়া পূর্বাভাস আলিপুর আবহাওয়া দফতরের। ১২ জানুয়ারি থেকেই নামবে পারদ। আগে জানানো হয়েছিল মকর সংক্রান্তিতে নাকি নতুন করে ফের পারদ পতনের সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু তার পদ্ধতি শুরু হতে পারে ১২ তারিখ থেকেই। কলকাতায় তাপমাত্রা ১৮ থেকে ১৪রে ফের নামবে বলে জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। সঙ্গে সঙ্গে দক্ষিণবঙ্গের জেলায় জেলায় ফের শীত ফিরবে  ওই সময় থেকেই। জাঁকিয়ে শীত পড়বে ওই তার দিন তিনেক পরে অর্থাৎ সংক্রান্তির সময় থেকেই।

অবশ্য এটাই হয়ে থাকে। পৌষ সংক্রান্তির আগে একচোট থমকে যায় শীত। তারপর বাঙালির পেয়ারের সাগরের হাওয়া আসতে শুরু করে এবং খুলে যা শীতের ‘হিহিপনা’। এবারও যথারীতি তাই হয়ে রয়েছে। পট পরিবর্তন শুরু হবে দিন চারেকের মধ্যেই অর্থাৎ আগামী সপ্তাহের মঙ্গলবার থেকেই ফের শীতের নাচন শুরু হতে পারে বলা খবর মিলছে হাওয়া অফিস সূত্রে।

তবে এখন কয়েকটি দিন আবহাওয়ার হেরফের হবে না। এমনই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। পশ্চিমী ঝঞ্ঝায় আটকে রয়েছে উত্তুরে হাওয়া। সেই কারণেই পূবালী হাওয়ার দাপটে স্বাভাবিকের থেকে বেশি তাপমাত্রা। সেই কারণেই দিনে উধাও শীতের আমেজ। তবে রাতের দিকে হালকা শীতের পরশ মিলবে। এমনই জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। আজ উত্তরবঙ্গে কোচবিহারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দার্জিলিংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, জলপাইগুড়িতে ১৩.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মালদহে ১৬.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শিলিগুড়িতে তাপমাত্রা ঘোরাফেরা করছে ১২ থেকে ১৩ ডিগ্রির আশেপাশেই। বৃহস্পতিবার কোচবিহারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দার্জিলিংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, জলপাইগুড়িতে ১৩.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শিলিগুড়ির ১১.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এদিকে আগামী কয়েকদিন দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে রাতের তাপমাত্রায় কোনও পরিবর্তন হবে না। পশ্চিমী ঝঞ্ঝার জেরে স্বাভাবিক নিয়মে পারদ ঊর্ধ্বমুখী। শুক্রবার আসানসোলের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বাঁকুড়ায় ১৭.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ক্যানিংয়ে ১৭.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস,ডায়মন্ড হারবারে ১৭.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দিঘায় ১৬.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, হলদিয়া ১৮.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শ্রীনিকেতনে ১৫.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বৃহস্পতিবার আসানসোলের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৬.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বাঁকুড়ায় ১৭.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ব্যারাকপুরে ১৬.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বর্ধমানে ১৫.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ক্যানিংয়ে ১৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কাঁথি ১৬.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দিঘায় ১৮.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কলাইকুন্ডায় ১৫.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মেদিনীপুর ১৮.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, পুরুলিয়া ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, পানাগড়ে ১৪.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শ্রীনিকেতনে ১৬.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রা যে বাড়ছে তা স্পষ্ট হাওয়া অফিসের এই তথ্যেই।

বুধবার আসানসোলের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বাঁকুড়ায় ১৪.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ব্যারাকপুরে ১২.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বর্ধমানে ১৫.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ক্যানিংয়ে ১৪.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কাঁথি ১১.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দিঘায় ১৫.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, পানাগড়ে ১১.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শ্রীনিকেতনে ১২.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কলাইকুন্ডায় ১২.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, পুরুলিয়া ১১.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মেদিনীপুর ১৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অর্থাৎ ২৪ ঘণ্টায় যে ব্যাপক হারে পারদ চড়েছে সমস্ত জেলায় তা স্পষ্ট।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.