স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বাড়লেও, একই থাকল সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। কিন্তু সর্বোচ্চ সর্বনিম্নের ফারাক বেশি না হওয়ায় জারি রইল সকালের ঠাণ্ডা ভাব। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। ফেব্রুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময়ে যে তাপমাত্রা থাকা উচিৎ তার তুলনায় বেশ কিছুটা কমই রয়েছে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। স্বাভাবিকের চেয়ে এখনও দুই ডিগ্রি কম রয়েছে।

হাওয়া অফিস জানাচ্ছে এই সময়ে কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭ ডিগ্রির আশেপাশে থাকলে সেটা স্বাভাবিক হতে পারে। কিন্তু বুধবার সকালের পারদ জানাচ্ছে বৃহস্পতিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের চেয়ে দুই ডিগ্রি কম। সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও স্বাভাবিক হয়েছে।

বুধবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৭.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। হাওয়া অফিসের পারদমাপক যন্ত্র অনুযায়ী বৃহস্পতিবার মহানগরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৯.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিক। এদিন শহরের হাওয়ায় উত্তুরে হাওয়ার সঙ্গে উত্তর পশ্চিমী হাওয়ার প্রভাবও রয়েছে। আবহবিদরা জানাচ্ছেন এর জেরেই সামান্য্য বেড়েছে সর্বোচ্চ

তাপমাত্রা। তবে এখন আরও কয়েকদিন শীতের অনুভূতি থাকবে। আর্দ্রতার সর্বোচ্চ এবং সর্বনিম্নের মাঝে ফারাক থাকায় বেলার দিকেও অস্বস্তি হওয়ার সম্ভাবনা কম বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। এদিন সকালে তিলোত্তমার আর্দ্রতার পরিমান সর্বোচ্চ ৯৩ এবং সর্বনিম্ন ৩৪ শতাংশ।

ঝঞ্ঝার জেরে কলকাতার পারদ ক্রমশ চড়েছিল। শীতের বেলা যেমন ফুরিয়েছে তেমনই ভাবেই বেড়েছিল পারদ। পশ্চিমি ঝঞ্ঝা এই পারদ চড়াকে আরও ইন্ধন জুগিয়েছিল। গত সপ্তাহে বৃহস্পতিবার সকালে কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিক।

সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৮.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের চেয়ে এক ডিগ্রি বেশি। শুক্রবার তাপমাত্রা আরও কিছুটা বেড়েছে। বেশি বেড়েছে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। এদিন কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের চেয়ে এক ডিগ্রি বেশি। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩১.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের চেয়ে তিন ডিগ্রি বেশি।

আর্দ্রতার পরিমান সর্বোচ্চ ৯৪ শতাংশ সর্বনিম্ন ৩৯ শতাংশ। শনিবার তাপমাত্রা ছিল সর্বনিম্ন ১৯.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের চেয়ে এক তিন বেশি। সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও পৌঁছে গিয়েছিল ৩০.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে, যা স্বাভাবিকের চেয়ে তিন ডিগ্রি বেশি। আর্দ্রতার পরিমান সর্বোচ্চ ৯৩ শতাংশ সর্বনিম্ন ৩৭
শতাংশ। বৃষ্টিও হয়েছিল ০.০৩ মিলিমিটার। শনিবার রাত থেকে মেঘ সরেছে। পারদও নেমেছে।