নয়াদিল্লি: শীঘ্রই প্লাস্টিক বর্জন করতে হবে। এবার দিন বেঁধে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বুধবারই এক অনুষ্ঠানে গিয়ে একথা বলেন তিনি। আগামী ২ অক্টোবরের মধ্যে প্লাস্টিক বর্জন করার কথা বলেন মোদী।

এদিন উত্তরপ্রদেশের মথুরাতে অনেকগুলি প্রকল্পের সঙ্গে সঙ্গে ন্যাশানাল অ্যানিম্যাল ডিজিজ কন্ট্রোল প্রোগ্রামে (এনএডিসিপি)র মূলত গবাদিপশুদের মুখের এবং পায়ের চিকিৎসা করার জন্য উদ্বোধন উপলক্ষ্যে হাজির হয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এই পরিকল্পনার মূল লক্ষ্য ৫০০ মিলিয়ন গবাদি পশু যাদের মধ্যে মোষ, ভেড়া,ছাগল এবং শুয়োরদের চিকিৎসা করা। এই প্রকল্প আগামী পাঁচ বছর অর্থাৎ ২০২৪ সাল পর্যন্ত চালানো হবে এবং তার জন্য খরচ হবে ১২,৬৫২ কোটি টাকা। এছাড়াও এই প্রকল্পে ১৭৫০ টি গরু ছাগল ও মোষকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। প্রধানমন্ত্রী পশুদের অস্ত্রোপচারের সাক্ষীও থাকবেন।

এছাড়াও তিনি পঁচিশজন মহিলা যারা আবর্জনা থেকে প্লাস্টিক বাছাই করেছেন দূষণ রোধ করার জন্য তাদের সম্মানিত করবেন বলে জানিয়েছেন। ১০০ মিনিট নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তিনি শহরও ঘুরে দেখবেন।

তিনি সকলকে পাটের ব্যাগ ব্যবহার করার জন্য অনুরোধ করেন এবং সকল বিক্রেতাদের ও প্যাকিং করার ক্ষেত্রে যতটা সম্ভব কম প্লাস্টিক ব্যবহার করতেও অনুরোধ করেছেন।

এদিন মোদী বলেন, ‘খুব অল্প দিনের মধ্যে আমরা বাপুর ১৫০তম জন্মবার্ষিকী পালন করতে চলেছি। তার লক্ষ্য ছিল স্বচ্ছতা যা আমরা আমাদের জীবনে পথনির্দেশের মত মেনে চলেছি। ২রা অক্টোবরের আগে আমাদের চারপাশকে প্লাস্টিকহীন করে তুলতে হবে। আমি সিভিল সোসাইটি, স্ব-সাহায্য সংস্থার কাছে এই লক্ষে যোগদান করার আবেদন করছি।’

ভারতের ইতিহাসে পরিবেশ এবং প্রাণী সম্পদ এক গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। এছাড়াও তিনি ২০১৯ সালের ‘স্বচ্ছতা হি সেবা’প্রকল্পের উদ্বোধন করেন এবং জাতীয় কৃত্রিম প্রজনন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। এছাড়াও তিনি উত্তর প্রদেশ সরকারের গৃহপালিত পশু, ট্যুরিজম এবং রাস্তা সারাই সংক্রান্ত ১৬ টি প্রকল্পের সুচনা করেন। এই সমস্ত কর্মকাণ্ডে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ছিলেন।