নয়াদিল্লি: ‘‘করোনা মোকাবিলায় পরীক্ষা, চিহ্নিতকরণ, চিকিৎসা ও নজরদারি এই ক্ষেত্রগুলির ওপরেই এখন প্রত্যেক রাজ্যের বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন’’, বুধবার ৭ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে করোনা পর্যালোচনা বৈঠকে এমনই পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান বলছে দেশের মধ্যে ৭টি রাজ্যে করোনার প্রকোপ সবচেয়ে বেশি। রাজ্যগুলি হল, মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্নাটক, উত্তরপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, দিল্লি ও পঞ্জাব। দেশের মোট করোনা আক্রান্তের মধ্যে ৬৫ শতাংশ রোগীই এই ৭ রাজ্যের।

করোনা মোকাবিলায় রাজ্যগুলি কী কী পদক্ষেপ করছে বা কেন্দ্রের তরফে রাজ্যগুলিকে আরও কী কী সহায়তা দেওয়া যায় এদিন তা নিয়েই ৭ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স মারফত বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে করোনা মোকাবিলায় আরও বেশি সচেতন হতে পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সংক্রমণের মোকাবিলায় এখন প্রত্যেক রাজ্যকে করোনা পরীক্ষা, চিহ্নিতকরণ, চিকিৎসা ও নজরদারির দিকগুলিতে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখতে হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার গুজবের জেরে যাতে টেস্টের সংখ্যা কোনওভাবেই কমে না যায়, সেব্যাপারেও মুখ্যমন্ত্রীদের সজাগ দৃষ্টি রাখতে পরামর্শ দিয়েছেন মোদী।

আনলক ফোর পর্যায়ে এসেও দেশে লাগামছাড়া সংক্রমণ। রাজ্যে-রাজ্যে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। বুধবার রাত পর্যন্ত ওয়ারর্ল্ডোমিটারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী দেশে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৭ লক্ষের গণ্ডি ছাড়িয়েছে। তবে ইতিমধ্যেই ৪৬ লক্ষেরও বেশি মানুষ করোনামুক্ত হয়েছেন। এখনও পর্যন্ত দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৯০ হাজার ৬১৯ জনের।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।