নয়াদিল্লি: করোনাভাইরাস অতিমহামারীর পর বন্যা আক্রান্তদের পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এলেন ভারতীয় দলের ক্রিকেটাররা৷ করোনা আতঙ্কের মধ্যেই পূর্ব ভারতের দুই রাজ্য অসম ও বিহার বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এই পরিস্থিতিতে অসহায় মানুষদের সাহায্যে এগিয়ে এল কোহালি অ্যান্ড কোং৷

অসহায় মানুষের সাহায্যের জন্য সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে ইনস্টাগ্রামে একটি স্বল্প দৈর্ঘ্যের ভিডিও পোস্ট করেছেন বিরাট ও তাঁর বাইশ গজের সহযোদ্ধারা৷ ভিডিও-তে নিজেদের নানা ক্রীড়া সরঞ্জাম নিলাম তুলে আর্থিক তহবিল গড়ারও অঙ্গীকার করেছেন বিরাট-ঋদ্ধিমান-কুলদীপরা৷

সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত সেই ভিডিও-তে প্রথমে দেখা গিয়েছে ক্যাপ্টেন কোহলিকে। বিরাট আবেদন, ‘অসম ও বিহারের বন্যা কবলিত অসহায় মানুষগুলি আপনাদের সাহায্য চাইছেন।’ তারপর আর্জি জানাতে দেখা যাচ্ছে কুলদীপ ও ঋদ্ধিমানকে৷ দু’জনের বক্তব্য, ‍‍‘এই দুই রাজ্যের প্রচুর মানুষ খুব খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন।’

কুলদীপ ছাড়াও রয়েছেন ভারতীয় দল স্পিনিং পার্টনার যুজবেন্দ্র চহালও৷ এছাড়া কলকাতা নাইট রাইডার্সের তরুণ ব্যাটসম্যান শুভমন গিল এবং অজিঙ্ক রাহানে৷ টিম ইন্ডিয়ার টেস্ট ভাইস-ক্যাপ্টেন বলেন, ‍‘দেশের মানুষের দুর্দশা কাটাতে আমাদের ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।’ এছাড়াও ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হরমনপ্রীত কউর৷ ক্রিকেটাররা ছাড়াও বন্যা ত্রাণে তহবিল গড়তে সঙ্গে যোগ দিয়েছেন ভারতীয় টেনিস তারকা সানিয়া মির্জাও৷ তিনি বলেন, ‍‍‘এ বার আমাদের এগিয়ে আসার পালা।’’

ভয়াবহ বন্যায় দুই রাজ্যে প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় শতাধিক মানুষ। ঘরছাড়া হয়েছেন বহু। তাই অন্যদের আবেদনের পাশাপাশি কোহলি নিজেও বিধ্বস্ত মানুষগুলির দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। বিরাট জানান, ‍‍‘ভারতের হয়ে জেতা ম্যাচের এক জোড়া ব্যাট আমার সই করে নিলামে তুলব।’ ঋদ্ধিমান তাঁর ভারতীয় দলের ছ’ নম্বর জার্সি হাতে নিয়ে জানান, ‍‘ওঁদের পাশে দাঁড়াতে পিঠে আমার সই করা এই জার্সিটা নিলামে তুলব।’

কুলদীপ তাঁর হ্যাটট্রিক বল। চাহাল দক্ষিণ আফ্রিকায় তাঁর পাঁচ উইকেট নেওয়া বল নিলামে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। হরমনপ্রীত ও শুভমন দিচ্ছেন তাঁদের সই করা ভারতীয় দলের জার্সি। রাহানে নিলামে তোলার জন্য দিচ্ছেন আইপিএলে শতরান করা ব্যাট। সানিয়া মির্জা দিচ্ছেন‍, ২০১৬ অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে মহিলাদের ডাবলস খেতাবজয়ী র‌্যাকেট৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ