স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ৭০ বছরের মধ্যে রাজ্যে সব থেকে কঠিন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন সিপিএম৷

রাজ্যের ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত ভোট সম্পর্কে সোমবার বিকালে আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের মুজাফ্ফর আহমেদ ভবনে সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র লড়াইয়ের কথা বলে গ্রামীণ কর্মী-সমর্থকদের উজ্জীবিত করার চেষ্টা করেলেন৷ তাঁর কথায়, ‘‘কঠিন লড়াই৷ তবে যে লড়াই কঠিন, সেটাই লড়াই৷’’ একই সঙ্গে এ দিন তিনি জানিয়েছেন, ধর্মনিরপেক্ষ, গণতান্ত্রিক মানুষের জোট লড়বে৷ তিনি বলেন, ‘‘আমি বিশ্বাস করি মানুষই ইতিহাস তৈরি করে৷’’

আরও পড়ুন: গোঁজ, নির্দলদের উপর হামলার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

মানুষের জোটের বিস্তারিত ব্যাখ্যায় যাননি সূর্যকান্ত মিশ্র৷ সহযোগী দলগুলির সঙ্গে আলোচনা না করে শব্দ খরচ করতে রাজি হননি তিনি৷ মহেশতলায় পুর নির্বাচনে কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের প্রসঙ্গে সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক জানান, কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা নিয়ে ফোনে কথা হয়েছে৷ আলোচনা হবে৷ কংগ্রেসের সঙ্গে আলোচনা করতে অসুবিধা নেই৷

ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েতের বিভিন্ন স্তরেই বিজেপির তুলনায় কম প্রার্থীর মনোনয়ন করতে পেরেছে সিপিএম৷ রাজ্য সম্পাদকের বক্তব্য, বিভিন্ন জায়গায় যেখানে সিপিএম শক্তিশালী সেখানে বিজেপিকে মনোনয়ন জমা দিতে বাধা দেওয়া হয়নি৷ কিন্তু যেখানে তৃণমূল শক্তিশালী, সেখানে বিজেপিকে আটকানো হয়েছে৷

আরও পড়ুন: বিজেপি প্রার্থীর আত্মীয়কে মারধরে অভিযুক্ত তৃণমূল

বিজেপি-তৃণমূলের সম্পর্ক নিয়ে সিপিএম রাজ্য সম্পাদকের ব্যাখ্যা, কেন্দ্র-রাজ্য বিরোধীপক্ষ ভাগাভাগি করে নিয়েছে৷ মুখ্যমন্ত্রী বিজেপিকে প্রধান বিরোধী হিসেবে চাইছেন৷ অন্যদিকে তিনি কেন্দ্রে প্রধান বিরোধী হতে চাইছেন৷ রাজ্যে আরএসএস-কে শাখা খুলতে সাহায্য করেছেন৷

আরএসএস তৃণমূলের আমলে ১১ গুণ বেড়েছে৷ যা বামেদের ৩৪ বছরে হয়নি৷ আরএসএস স্কুল বিল্ডিংগুলিতে বৈঠক করে৷ কিন্তু আমরা সভা করার জন্য তা পাই না৷ আসলে মুখ্যমন্ত্রী বুঝতে পারছেন না উনি ‘ছোট প্লেয়ার’, বিজেপি ‘বড় প্লেয়ার’৷ বিজেপি সফলভাবে এই সুযোগ ব্যবহার করছে৷

আরও পড়ুন: তৃণমূল কর্মীর মৃতদেহ উদ্ধারে রহস্য কুলতলির গ্রামে