কলকাতা: দুর্গাপুজো নিয়ে হাইকোর্টের রায়কেই মান্যতা রাজ্য সরকারের। হাইকোর্টের পুজো-রায়ের বিরুদ্ধে আর সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানাবে না রাজ্য সরকার। হাইকোর্টের রায়কে মান্যতা দিয়ে এবার রাজ্যবাসীকে বাড়ি বসে ভার্চুয়ালি পুজো দেখার আবেদন রাজ্য সরকারের।

প্রতিটি পুজো মণ্ডপ নো এন্ট্রি জোন। মণ্ডপে ঢুকতে পারবেন না দর্শনার্থীরা। পুজোয় দর্শকশূন্য থাকবে মন্ডপ। প্রতিটি পুজো মণ্ডপকে কন্টেনমেন্ট জোন হিসেব গণ্য করা হবে। পুজো বন্ধের শুনানিতে সোমবার এই রায়ই দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। বড় মন্ডপের ক্ষেত্রে দূরত্ব হবে ১০ মিটার।

আর ছোট মন্ডপের ক্ষেত্রে দূরত্ব ৫ মিটার। এই এলাকায় কোনও দর্শনার্থী ঢুকতে পারবেন না। মন্ডপের বাইরে লাগাতে হবে নো এন্ট্রি বোর্ড। মণ্ডপে কেবলমাত্র পুজো উদ্যোক্তাদের কয়েকজন ঢুকতে পারবেন বলে রায় দিয়েছে আদালত।

ছোট-বড় সব প্যান্ডেলে নো-এন্ট্রি বাফার জোন করার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। কেবলমাত্র পুজোকমিটিগুলির ২০-২৫ সদস্য মণ্ডপে ঢুকতে পারবেন বলে জানায় হাইকোর্ট। তাঁদের নামের তালিকাও আগে থেকে মণ্ডপে ঝুলিয়ে দিতে হবে। সোমবার এই রায়ের জেরে ঘোর বিপাকে পড়েন পুজো উদ্যোক্তারা। হাইকোর্টের এই রাযের বিরুদ্ধে রাজ্য সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করতে পারে বলে কোনও কোনও মহল থেকে অনুমান করা হচ্ছিল।

তবে শেষমেশ সে পথে হাঁটছে না রাজ্য সরকার। হাইকোর্টের পুজো-রায়ের বিরুদ্ধে আর কোনও আবেদন করবে না রাজ্য সরকার।

বরং আদালতর নির্দেশকে মান্যতা দিয়ে যাতে সবাই তা মেনে চলেন সেব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করবে রাজ্য। হাইকোর্টের রায়কে স্বাগত জানিয়ে রাজ্য সরকার প্রত্যেককে এবছর ভার্চুয়াল মাধ্যমে পুজো উপভোগ করার আবেদন জানিয়েছে।

দেশে এবং বিদেশের একাধিক সংবাদমাধ্যমে টানা দু'দশক ধরে কাজ করেছেন । বাংলাদেশ থেকে মুখোমুখি নবনীতা চৌধুরী I