স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: অনেক ক্ষেত্রে করোনা ভাইরাস যক্ষ্মাকে ডেকে আনছে। তাই করোনা থেকে মুক্তি পাওয়ার পর বাধ্যতামূলক করা হল যক্ষ্মা পরীক্ষা। রাজ্যের সব সরকারি-বেসরকারি কোভিড হাসপাতাল ও ল্যাবরেটরিকে এই নির্দেশ জানিয়ে দিয়েছে স্বাস্থ্যভবন।

স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে , রাজ্যের প্রায় দু’ হাজারের বেশি কোভিড রোগীকে পাওয়া গিয়েছে যাঁদের মধ্যে যক্ষ্মার লক্ষণ দেখা গিয়েছে। বিশেষ করে, বস্তিবাসী, ইটভাটার শ্রমিকদের মধ্যে করোনার পর যক্ষ্মার প্রকোপ বেশি দেখা যাচ্ছে।

স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশিকায় স্পষ্ট বলা হয়েছে, হাসপাতাল বা বাড়িতে থেকে করোনা রোগ মুক্ত হওয়ার ৭-২১ দিনের মধ্যে যক্ষ্মা পরীক্ষা করতেই হবে।

করোনা থেকে মুক্ত হওয়ার পরেও শুকনো কাশি বা অল্প পরিশ্রমে ক্লান্ত হওয়া অথবা ওজন কমে গেলে অপেক্ষা না করে দ্রুত হাসপাতাল বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে টিবি পরীক্ষা করতে হবে। এই ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট সরকারি হাসপাতাল বা ল্যাবরেটরি দায়িত্ব নেবে।

রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা ডা. অজয় চক্রবর্তী এই প্রসঙ্গে বলছেন, “দেশের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে প্রথম এই কর্মসূচি শুরু করল।”স্বাস্থ্য অধিকর্তার কথায়, “কোভিড আক্রান্ত ব্যক্তির প্রতিরোধ ক্ষমতা বা ইমিউনিটি আগের থেকে অনেকটাই কমে যায়। ফলে দ্রুত যক্ষ্মার মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।” রাজ্য প্রশাসনের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

এদিকে, শীত পড়লে সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। আগাম প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে চাইছে রাজ্য সরকার। আগামী ৩ মাসের জন্য ৫ লক্ষ র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের দরপত্র ডেকেছে স্বাস্থ্য দফতর। করোনা কালে এত সংখ্যক কিট অর্ডার রেকর্ড বলে জানাচ্ছে স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা। ইতিমধ্যেই ডাকা হয়েছে অনলাইন টেন্ডার বৈঠক।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।