কলকাতা: করোনার সংক্রমণে লাগাম পরাতে তৎপরতার পাশাপাশি স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে গোটা দেশ। বাংলাতেও ক্রমেই বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। করোনা মোকাবিলায় লকডাউন ৩১ জুলাই পর্যন্ত চলবে বলে ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে লকডাউনের মধ্যেই এবার রাজ্যে আরও কিছু ক্ষেত্রে ছাড় মিলবে বলে জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বুধবার থেকেই রাজ্যে মর্নিংওয়াকে ছাড় দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ভোর সাড়ে ৫টা থেকে সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত প্রাতঃভ্রমণ করা যাবে বলে জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তবে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে প্রত্যেককে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে বলে সাফ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। একসঙ্গে দল বেঁধে প্রাতঃভ্রমণ চলবে না। প্রত্যেককে মুখে মাস্ক পরে পারলে মাথায় একটি আচ্ছাদন দিয়ে প্রাতঃভ্রমণে বেরোনর পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এরই পাশাপাশি বুধবার থেকেই সামাজিক অনুষ্ঠানে সর্বোচ্চ ৫০ জনকে আমন্ত্রণ করা যাবে বলে ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এতদিন পর্যন্ত বিয়ে, শ্রাদ্ধ বা অন্য কোনও সামাজিক অনুষ্ঠানে রাজ্যে সর্বোচ্চ ২৫ জনকে আমন্ত্রণ জানানোর সুযোগ ছিল। তবে কাল থেকেই সেই সংখ্যাটা বাড়ানোর ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

মঙ্গলবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী এপ্রসঙ্গে বলেন, ‘লকডাউনটা পুলিশকে আবার বলব সিরিয়াসলি দেখা। মানুষের জীবনযাত্রাও চলবে আর কোভিডও যাতে স্প্রেড না করে সেটাও দেখতে হবে। অনেকে মর্নিং ওয়াক করতে পারছেন না। মর্নিং ওয়াকে এবার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। ভোর ৫.৩০ থেকে সকাল ৮.৩০ পর্যন্ত মর্নিং ওয়াকে ছাড় মিলবে। একসঙ্গে ভিড় করে মর্নিং ওয়াক নয়।’

করোনা আবহে এতদিন কোচবিহারে চ্যাংরাবান্ধা সীমান্তে বাণিজ্য বন্ধ ছিল। মূলত ওই পথ দিয়ে রাজ্য থেকে বাংলাদেশে পণ্য নিয়ে যাওয়া বা আনা হয়। বুধবার থেকেই চ্যাংরাবান্ধা সীমান্তে বাণিজ্য শুরু হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV