কলকাতা: আবারও কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। মঙ্গলবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রকে বিঁধে মমতার তোপ, ‘প্রধানমন্ত্রীর থেকে কিছুই পাই না। কেন্দ্রের কাছে খালি থালা নিয়ে ফিরতে হচ্ছে।’

কেন্দ্র বকেয়া ৫২ হাজার কোটি টাকা দিচ্ছে না, বিভিন্ন প্রকল্পে টাকা বাকি রেখেছে কেন্দ্রীয় সরকার, অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর। এদিন কেন্দ্রের সমালোচনা করার পাশাপাশি রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘২ মাস ধরে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বন্ধ। প্রত্যেকের রুজি রোজগার শেষ হতে চলেছে। করোনা ছিল আছে থাকবে। করোনাকে সঙ্গে নিয়েই চলতে হবে।’

বর্তমান পরিস্থিতিতেও যাতে কিছুটা অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু করা যায় সেব্যাপারে তৎপরতা শুরু করেছে রাজ্য সরকার। স্বল্পমেয়াদি-মাঝারি ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য সরকার। ধাপে ধাপে সেভাবেই রাজ্যে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু করে চায় রাজ্য সরকার।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এপ্রসঙ্গে বলেন, ‘আপাতত ৩ মাসের জন্য স্বল্পমেয়াদী পরিকল্পনা করতে হবে। সেভাবেই অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড চালাতে হবে।’

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, কলকাতার বিভিন্ন জায়গায় ১৩টি সরকারি বাস চলবে। সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে মাত্র ২০ জন নিয়েই সরকারি বাস চালাবে রাজ্য সরকার। বেসরকারি বাসেও ২০ যাত্রীই নিতে হবে। এক্ষেত্রে বেসরকারি বামমালিকরা চাইলে ভাড়া বাড়াবেন। সেক্ষেত্রে যাঁরা বেশি ভাড়া দিয়ে যেতে পারবেন তাঁরা যাবেন।

আপাতত রেস্টুরেন্ট ছাড়া খাবারের দোকান রাজ্যে খুলছে। বেলা ১২টা থেকে ৬টা পর্যন্ত দোকান খোলা থাকবে। খাবারের দোকানে এখনই বসে খাওয়া যাবে না। বাড়িতে খাবার নিয়ে গিয়ে খেতে হবে। করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতেই আপাতত এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ