স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট ও তমলুক: পথ নিরাপত্তার সতর্কতাই সার! ফের দুটি পৃথক পথ দুর্ঘটনায় বলি হল ৫টি প্রাণ! রবিবার দুর্ঘটনা দুটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট ও পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দকুমারে৷

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন গঙ্গারামপুর থেকে বালুরঘাটের দিকে আসার পথে ​৫১২ নম্বর জাতীয় সড়কের পতিরাম এলাকায় বিএসএফ হেড কোয়ার্টারের সামনে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তিন জন মহিলাকে ধাক্কা মারে চাল বোঝাই একটি লরি৷ ঘটনাস্থলেই দু’জনের মৃত্যু হয়।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় অপরজনকে ভরতি করা হয় হাসপাতালে৷ ঘটনাস্থলেই বংশীহারি ব্লকের বাজে-হরিপুরের বাসিন্দা শুনলি সরেন সহ মোট দু’জনের মৃত্যু হয়। মৃত অপরজনের পরিচয় জানা যায়নি।

জখম সানরি হেমব্রমের চিকিৎসা চলছে বালুরঘাট সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে৷ তাঁর বাড়ি, বেলতারা এলাকায়৷ ঘাতক লরিটির চালক ও খালাসি পলাতক। তাঁদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ৷

অন্যদিকে এদিনই পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দকুমার থানার গুড়িয়ামোড়ে ইট বোঝাই লরির সঙ্গে বাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে মৃত্যু হল ৩জন বাইক আরোহীর। মৃতরা হলেন, ময়নার মির্জানগরের প্রদীপ কান্ডার(২৬), শুভদীপ কান্ডার (২৪) এবং ময়নার আড়ংকিয়ারানার সুশান্ত মণ্ডল ওরফে লালু(২৫)। পুলিশ মৃতদেহগুলি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য তমলুক জেলা হাসপাতালে পাঠায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার দুপুরে তমলুকের নিমতৌড়ি থেকে দ্রুতগতিতে বাইকে তিন যুবক নিমতৌড়ি- টেঙ্গরাখালী সড়ক ধরে ময়নার অভিমুখে যাচ্ছিলেন। যাওয়ার সময় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে অপরদিক থেকে আসা একটি ইট বোঝাই লরিতে ধাক্কা মারে। লরির চাকায় পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই তিনজনের মৃত্যু হয়। ইট বোঝাই লরিটিকে পুলিশ আটক করেছে। পলাতক গাড়ির চালক। ঘটনার জেরে নিমতৌড়ি – টেঙ্গরাখালী সড়ক বেশকিছুসময় আচল হয়ে পড়ে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে যানচলাচল স্বাভাবিক হয়।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও