ঢাকা: যানজট, ধুলোবালি এড়িয়ে বিমানযাত্রীদের সঠিক সময়ে পৌঁছে দিতে চালু হল ওয়াটার বাস সার্ভিস৷ চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সহায়তায় বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এসএস ট্রেডিং এই এই পরিষেবা চালু করেছে৷ এই পরিষেবার মাধ্যমে সদরঘাট থেকে একজন যাত্রী ২৫ মিনিটে বিমানবন্দরে পৌঁছতে পারবে৷

বিশ্বের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশও৷ আধুনিক হচ্ছে পরিবহন ব্যবস্থা৷ কর্ণফুলী নদীতে চালু হল ওয়াটার বাস পরিষেবা৷ সোমবার সকালে এই ওয়াটার বাসের যাত্রা শুরু হয়েছে৷ যা চট্টগ্রাম মহানগরীর সদরঘাট থেকে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সংলগ্ন পতেঙ্গা জেটি পর্যন্ত চলবে৷ সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এই ওয়াটার বাসের ভাড়া ৩৫০ টাকা প্রতিজনের৷ প্রতিটি ওয়াটার বাসে ২৫ জনের বসার ব্যবস্থা রয়েছে।

জানা গিয়েছে, চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে উড়ানের সময়সূচী অনুযায়ী ওয়াটার বাস চলাচলের সময়সূচী নির্ধারণ করা হয়েছে৷ আপাতত প্রতিদিন চট্টগ্রাম সদরঘাট থেকে সকাল ৭টা, ৮টা, দুপুর ১২টা ১৫ মিনিট, বেলা ৩টা ও সন্ধ্যা ৭টায় ওয়াটার বাস পতেঙ্গার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে৷ প্রায় ১৬ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রমের পর পতেঙ্গা জেটি থেকে শাটল বাসে করে যাত্রীদের এয়ারপোর্ট পৌঁছে দেওয়া হবে এসএস ট্রেডিং কর্তৃপক্ষ৷ যাত্রীদের লাগেজ ওয়াটার বাস কর্তৃপক্ষের কর্মীরা বহন করবে৷

অন্যদিকে পতেঙ্গা থেকে সকাল সাড়ে ৮টা, বেলা সাড়ে ১১টা, বেলা ২টা ২৫ মিনিট, বিকেল সাড়ে ৪টা ও রাত ৯টা ১৫ মিনিটে সদরঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে আসবে ওই বাস৷ শুরুতে দুটি ওয়াটার বাস যাতায়াত করলেও জানুয়ারিতে আরও দুটি ওয়াটার বাস সংযুক্ত হবে৷ তবে এখন শুধুমাত্র বিমানযাত্রীরাই ওয়াটার বাসের পরিষেবা পাবেন৷ যদিও এসএস ট্রেডিং কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে,পরবর্তীতে ওয়াটার বাসে সাধারণ পর্যটকরাও ভ্রমণের সুযোগ পাবেন৷

ওয়াটার বাস সার্ভিস প্রকল্পটি বন্দরের হলেও এসএস ট্রেডিং এটি পরিচালনা করবে এবং পর্যবেক্ষণে থাকবে চট্টগ্রাম ড্রাই-ডক। এজন্য বছরে চট্টগ্রাম বন্দরকে ৭০ লাখ টাকা করে দেবে এসএস ট্রেডিং৷ এমনটাই সূত্রের খবর৷ বিমানবন্দরমুখী যাত্রীরা যানজট এড়াতে নদীপথে এ বিকল্প যাত্রা বেছে নেবে বলে আশা পরিচালনাকারী সংস্থা৷

প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাবাব হোসেন সংবাদমাধ্যমকে জানান, চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে প্রতিদিন গড়ে ৮ হাজারের মতো যাত্রী যাওয়া-আসা করে। বর্তমানে বিমানবন্দর সড়কের বিভিন্ন অংশে অতিরিক্ত যানজটের কারণে যাত্রীদের ফ্লাইট ধরতে অসুবিধা হচ্ছে৷ তাই ওয়াটার বাস পরিষেবা চালু করা হয়েছে৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ